যশোরে ইসলামী আন্দোলনের নেতা শহিদুল গাজীর ঈদ শুভেচ্ছা বার্তা

টাইম ভিশন ২৪,যশোর:ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ পৌর শাখা সদর যশোর এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ সহিদুল ইসলাম গাজী পবিত্র ঈদ উল ফিতরের অগ্রিম শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন,যশোর পৌরবাসী সহ সর্বস্তরের জনগনকে। এক প্রেস বার্তায় তিনি বলেছেন আতঙ্কিত নয় সতর্ক হই। নোভেল করোনা ভাইরাস (কোভিড ১৯) থেকে রক্ষা পেতে আল্লাহকে বেশি বেশি স্বরণ করতে হবে। চলতে ফিরতে আল্লাহর জিকির করতে হবে। হারাম কাজ হতে দুরে থাকতে হবে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে সমাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে।
আলহামদুলিল্লাহ যদি রোজা ২৯ টি হয় সে হিসাবে ঈদ বৃহস্পতিবার আর যদি ৩০ টি হয় সে হিসাবে আগামী শুক্রবার পবিত্র ঈদুল ফিতর। গেছে বছর ঈদের মতো এবারো আমরা এমন ভয়াবহ একটি সময় ঈদ উদযাপন করতে যাচ্ছি। আমাদের সমাজে অনেক শ্রমজীবি মানুষ আছে যাদের এই পবিত্র রমজান মাসে লক ডাউনের কারনে জিবিকা র্নিবাহ করা কঠিন হয়ে দাড়িয়েছে।
ঈদ আমাদের মুসলিম জাতির জন্য একটি বড় ধর্মীয় উৎসব। আমাদের যাদের যাকাত দেওয়ার সামর্থ আছে তারা নিজে থেকে সমাজের অসহায় মানুষের পাশে দাড়াবার চেষ্টা করি। যাকাতের পরিপূর্ণ অর্থ বিলিযে দেই কিংবা বেশি বেশি দান করি। তা হলে দেখা যাবে সবাই খুশি মনে ঈদ উদযাপন করতে পারবে।
তবে আমাদের অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যে অতি আনন্দে আত্মহারা হয়ে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে যেন কোলাকুলি, বেড়ানো, পিকনিক ইত্যাদি সরগম না করি। কারন আমাদের সামান্য একটু অসতর্কতা বড় ধরনের বিপদ ডেকে আনতে পারে। আল্লাহ চাইলে ভবিষ্যতে আমরা আনন্দের সাথে সবাই মিলে ঈদ করতে পারবো ইনশাহ্আল্লাহ।
আরও একটা কথা বলতে চাই দেখুন ঈদের দিন আপনার আমার বাসায় গোস্ত, পোলাও ইত্যাদি ভালো ভালো খাবার রান্না হবে। আমাদের পাশের বাসায় মানুষগুলো কি খাচ্ছে না খাচ্ছে তা দেখা আমাদের ঈমানী দ্বায়িত্ব কারন কাল কেয়ামতের দিন আল্লাহর কাছে এর জবাবদিহী করা লাগবে।
সবশেষে বলবো যে পবিত্র ঈদুল ফিতর ধনী-গরীব, উচু-নিচু নির্বিশেষে সকল মানুষকে এক কাতারে দাঁড় করায়। হানাহানি, হিংসা, বিদ্বেষ ও তিক্ততার গ্লানি থেকে মানুষের মনকে এক স্বর্গীয় শান্তি ও সম্প্রীতির চেতনা দান করে ঈদের উৎসব। ধনী, গরীব নির্বিশেষে সকল মুসলমান যেন ঈদের আনন্দ সমান ভাবে ভাগাভাগি করে এই প্রত্যাশা করি। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ জিন্দাবাদ চরমোনাই পীর সাহেব জিন্দাবাদ।