মেয়ে তুমি কেঁদো না

মেয়ে তুমি কেঁদো না

মেয়ে তুমি কেঁদো না
শক্ত হও,
উঠে দাঁড়াও, ঘুরে দাঁড়াও।

তুমি মা, তুমি বোন, তুমি বধু,
তুমি অল্পে ভেঙে পড়ো না
তুমি স্রষ্টার আশির্বাদ
নিজেকে দূর্বল ভেবো না।

মেয়ে তুমি সোচ্চার হও,
অঙ্গুলি তোলো, কটাক্ষ করো,
জালিমের যে লোভী চোখ,হাত,দাঁত
তোমাকে খুবলে দিয়েছে,
তাকে তুমি ছেড়ো না,
তুমি মুখ লুকিয়ে আর কেঁদো না।

মেয়ে তুমি চুপ করে আর থেকো না
সভ্যতার গোড়াপত্তনে তুমি
তুমিই ছিলে সমাজের অগ্রগামি
নিজের অধিকার থেকে সরো না
দোহায় তোমার….
আর একটবারও তুমি হেরো না।

লালসার চোখ উপড়ে ফেলো,
কামুক হাত মুচড়ে দাও,
বিষাক্ত দাঁত ভেঙে দাও।
মাথা উঁচু করে, সিনা টান করে বলো…
“আমিও মানুষ,ভোগ্য পণ্য না
আমিও মানুষ,কোন অচ্ছুৎ না
আমিও মানুষ, কারো হাতের খেলনা না”

দোহায় তোমার, তুমি আর একটিবারও কেঁদো না।।

যাদু