তোষামোদ : মো:মজিবুলহক

তোষামোদ
মো:মজিবুলহক

তোষামোদি ও তেলবাজি নাকি
একটা দারুণ আর্ট বা শিল্প
এই তোষামোদ নিয়ে আছে কত
ইতিহাস এবং আছেই গল্প,

তবে এ শিল্পীরা হয় অতি ঘৃণিত
সাধারণ ও বিবেকের দরবারে
সবাইকে তারা বোকা ভাবে তবে
নিজেকেই ভাবেনা একবারে।

অনেককিছু দেখে এবং জেনেও
জনগণ না দেখারি করে ভান
অনেককিছু বুঝেও জনসাধারণ
তারা কষ্টে করে রয় অভিমান,

এই ভান এবং অভিমান করাকে
অনেকে তারা বুঝতে হয় ব্যর্থ
গুটিকয়েক যদিও বুঝে লাভ নেই
কারন তারা রয় স্বার্থেই উন্মত্ত।

তোষামোদি অনেকটা দেখা মিলে
নোংরা রাজনীতিরই ময়দানে
তাদেরি বড় অস্ত্র হলো তেলবাজি
আকাঙ্ক্ষা পুরণই তেল মর্দনে,

এ চামচাদের মধ্যে শিক্ষিত আর
অশিক্ষিত উভয়ই শ্রেণীর রয়
যারা অশিক্ষিত তাদের চামচামি
আবার তেমন ইম্পোর্টেন নয়।

যারা উচ্চ শিক্ষিত চামচা তাদের
কিন্তু বিশাল-বিশাল স্বার্থ রয়
এই শিক্ষিত যারা চামচামি করে
তাদের আবার বুদ্ধিজীবী কয়!

ইতিহাস ঘাটলে দেখা যায় যারা
চামচামি করে লাভবান রয়
মজার বিষয় হলো যার চামচামি
করেই বেড়ায় সেও খুশি হয়,

চামচাদেরই তারা এড়িয়ে চলেনা
ইহা পছন্দ সহজাত বৈশিষ্ট্য
আর তাই চামচাগণ চালিয়ে যায়
তাদের এই আজব কেমিস্ট্রি।

বুদ্ধিজীবীরা চামচামি করতে গিয়ে
দিনকে রাত কালোকে সাদা বলে
তারা জাতির বিশাল ক্ষতি সাধিত
করে কারন পেত্নীকেও পরি বলে!

এ পরগাছা প্রকৃতি সম্মানহীনদের
চামচামি পশ্রয় দেয়া উচিত নয়
হেঁ আত্মসম্মান বিসর্জন দেয়া লোক
তাদের দ্বারা ক্ষতি অপূরণীয় হয়,

এরা তারা যারা ব্যক্তি স্বার্থকে করে
সকল স্বার্থের উপরে স্থানান্তরিত
এদের পূর্বসূরিদের বিশ্বাসঘাতকতায়
পলাশীর স্বাধীনতার সূর্য অস্তমিত।

মীর জাফরদের ভাবশিষ্যের কারনে
হারছে অধিকার হারছেই সুনাম!
এ চামচাদের তরে টাইটেল খুঁজতেছি
পেলেই আরেকটি যুৎসই উপনাম।