যশোর শহরে গৃহবধূকে নির্যাতনের অভিযোগে মামলা

যশোর প্রতিনিধি: দুই দফায় যৌতুক দাবি করে নির্যাতনের অভিযোগে স্বামী এমএম আক্তার হোসেন ওরফে বিপুলের বিরুদ্ধে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা হয়েছে। সে চুয়াডাঙ্গা জেলার সদর উপজেলার মুক্তিপাড়া কোর্ট রোড ডাচ্ বাংলা ব্যাংকের বিপরীত মৃত এমএম জাহিদ হোসেনের ছেলে।
যশোর শহরের ৮৪/এ,এইচএমএম রোড লোন অফিস পাড়ার একেএম মনছুর আলীর মেয়ে আফসানা ইয়াসমিন বৈশাখী সোমবার ১ ফেব্রুয়ারী দুপুরে যৌতুক লোভী স্বামী বিপুলের বিরুদ্ধে থানায় মামলায় বলেছেন, বিগত ১৪ এপ্রিল ২০১৪ সালে বিপুলের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর স্বামী বিপুল ১০লাখ যৌতুক দাবি করে নির্যাতন শুরু করে। বিপুলের সাথে ঘর সংসার করাকালে বৈশাখী দুই মেয়ের জননী হয়। যৌতুকের নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পেতে বৈশাখীর পিতা মেয়ের সুখের কথা ভেবে বিপুলকে নগদ ৩লাখ ৭০ হাজার টাকা ও সংসারের আসবাবপত্রসহ ৫লাখ টাকা প্রদান করে । এরপর পুনরায় ৫লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে বৈশাখীর উপর নির্যাতন শুরু করে। যৌতুকের টাকা না দিলে তাকে নিয়ে ঘর সংসার করবেনা। এমনকি তাকে হত্যার হুমকী দেয়। স্বামীর ঘর হতে বৈশাখী তার পিতার দেওয়া যশোর শহরের লোন অফিস পাড়ার বাড়িতে চলে আসে। সেখানে বসবাসের এক পর্যায় স্বামীর সাথে সংসার করার জন্য তাকে বিষয়টি মীমাংসা করে করে নিতে বলে। তাকে যশোর শহরের বাড়িতে আসতে বলে। গত ২৫ জানুয়ারী দুপুর ১ টায় স্বামী বিপুল বৈশাখীর পিতার দেওয়া বাড়িতে এসে যৌতুকের ৫লাখ টাকা দাবি করে। দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তাকে মারপিট করে জখম করে। পরে বিপুল হুমকী দিয়ে চলে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় বৈশাখী যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহন করে।