ঝিকরগাছায় হাতুরে ডাক্তারের ভিজিটিং কার্ডে সরকারি লোগো

আফজাল হোসেন চাঁদ: ঝিকরগাছায় সরকারি কর্মকর্তা না হয়েও ভিজিটিং কার্ডে সরকারি লোগো ব্যবহার করছে আমিনুর রহমান নামের এক গ্রাম্য পশু চিকিৎসক। সে সরকারী লোগে ব্যবহার করে এলাকার বিভিন্ন মানুষের সাথে অবাধে প্রতারণা শুরু করেছেন। তার গ্রামের বাড়ি মনিরামপুর উপজেলার সালামতপুর। বর্তমানে তিনি পৌরসদরের কীর্তিপুর গ্রামে বসবাস করেন। নিজেকে এলাকার মানুষের নিকট বড় মাপের ব্যক্তি বানাতে ভিজিটিং কার্ডে সরকারি লোগো ব্যবহারের মাধ্যমে উপজেলা ও পৌরসদরের বিভিন্ন এলাকায় গবাদি প্রাণি চিকিৎসক ও সরকারি প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত বলে প্রচার করে সাধারণ মানুষকে হয়রানী করছে। এই বিষয়ে এলাকার সচেতন মহল আমিনুর রহমান নামের এই গ্রাম্য পশু চিকিৎসকের শাস্তির দাবি করেছেন।
গ্রাম্য পশু চিকিৎসক আমিনুর রহমান জানান, আমি কোনো সরকারি কর্মকর্তা না। আমি যুব উন্নয়ন, সাফি মেডিকেল ও ঝিকরগাছা হাসপাতাল থেকে প্রশিক্ষণ নিয়েছি। যুব উন্নয়ন ও সাফি মেডিকেল থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে আরো ভালোভবে শেখার জন্য হাসপাতালে পাঠায়। তারপর বড় বড় টিএনও, সার্জেন অফিসার আছে তাদের সাথে দেখে দেখে হাসপাতালে অনেক রোগী আসে আমরা সেগুলো দেখি। ভিজিটিং কার্ডে সরকারি লোগো ব্যবহারের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি আরো বলেন, এই মনোগ্রামটা কায়েমকোলাতে বানাইছে। আমি এতে মনোগ্রাম দেয়নি।
উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার তপনেশ্বর রায় জানান, সরকারি কর্মকর্তা ছাড়া এই লোগো ব্যবহারও শাস্তিযোগ্য অপরাধ। আইনত এভাবে লেখার নিয়ম নেই। যদি আইনি প্রক্রিয়ায় যাওয়া হয়, তবে এটি একটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে অভিযোগ করলে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরাফাত রহমান জানান, এটি যদি কেউ করে থাকে, তবে তা দুর্ভাগ্যজনক এবং এটি অনৈতিক। ডিগ্রি অর্জন না করেও ব্যক্তিগত ভিজিটিং কার্ডে সরকারি লোগো ব্যবহারের বিষয়টি আমি জানতাম না। যেহেতু আপনারা আমাকে অবগত করলেন সেহেতু আমি উক্ত বিষয়টির বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করিবো।