ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সাবেক সদস্য রানা আর নেই

মোহাম্মদ মজিবুলহক: বড় অবেলায় না ফেরার দেশে চলে গেলেন আওয়ামীলীগের দুর্দিনের অসীম সাহসী যোদ্ধা, ১৯৯২ সালের সম্মেলনের মধ্য দিয়ে গঠিত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সদস্য ও ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের কবি জসিম উদ্দিন হল ছাত্র সংসদের এজিএস মোতাহের হোসেন রানা। তিনি আজ ০১লা জানুয়ারী শুকবার বেলা সাড়ে বারোটা সময় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্দ হলে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন- ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাহি রাজিউন।

মরহুম মোতাহার হোসেন রানার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের মীরসরাই উপজেলার ১২নং খৈয়াছড়া ইউনিয়নে, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের রাজনীতি শেষ হওয়ার পর নিজ উপজেলা মীরসরাই ছাত্রলীগকে সংগঠিত করার জন্য তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের রাজনীতিতে যোগদান করেছিলেন এবং উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালনও করেন। ছাত্রজীবনে এমন বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী মানুষটি পরবর্তী জীবন যুদ্ধে হেরে যান

ছবিতে পুরাতন শার্ট পরিহিত ও আশাহীন চোখে তাকিয়ে থাকা ঝরাজীর্ণ ছবির এই মানুষটির নামই মোতাহার হোসেন রানা। (সাবেক সদস্য; বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি। সাবেক এজিএস; কবি জসিম উদ্দিন হল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও সাবেক সভাপতি; মিরশ্বরাই থানা ছাত্রলীগ)

৯০-এ স্বৈরাচার বিরোধী ছাত্র আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের প্রথম কাতারের নেতা ছিলেন তিনি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের এক সভায় তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও আজকের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সামনে ০৫ মিনিট বক্তব্য দিয়েছিলেন তিনি। সভামঞ্চে তার বক্তব্য শুনে দেশরত্ন শেখ হাসিনা খুশী হয়ে তার নাম, ঠিকানা ডায়রীতে টুকে নিয়েছিলেন সেদিন।

কিন্তু সেদিন মীরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে উপস্থিত দর্শকের সারিতে এভাবেই চেয়ারে এমন অসহায় হয়ে বসেছিলেন একসময়ের মাঠ কাঁপানো সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোতাহার হোসেন রানা ভাই। কিন্তু সভামঞ্চে তারই হাতে গড়া কর্মী, সহযোদ্ধা অনেকে থাকলেও কেউ তার খবর রাখেনি।

রাজনীতিতে অর্থ-বিত্ত না থাকলে দাম নাই। টাকা,পয়সা না থাকলে টিকে থাকা যায় না। সংগ্রাম আর ত্যাগের এটাই মূল্য। রানা ভাই এর মত মুজিব আদর্শের লড়াকু সৈনিক এমন বেহাল দশা হয়েছিলো,আর কোন ত্যাগীদের এমন দশা না হোক, সবশেষে মরহুম মোতাহার হোসেন রানা ভাই বিদেহি আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি।

লেখক: কবি ও কলামিস্ট: মোহাম্মদ মজিবুলহক,
জোরারগঞ্জ (মীরসরাই) প্রতিনিধি, টাইম ভিশন ২৪।