শাহাবুদ্দিন আহমেদ : বেনাপোলে আল-আমিন ওরফে নয়ন (২৮) নামে এক যুবক খুন হয়েছে। সোমবার সকালে বেনাপোল পোর্ট থানার দুর্গাপুর গ্রাম থেকে তার গলায় ফাঁস দেওয়া লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আল-আমিন বেনাপোল পোর্ট থানার দূর্গাপুর গ্রামের মৃত মিজানের ছেলে। সে দীর্ঘদিন যাবত বেনাপোল স্থলবন্দরের ৩৭ নং শেডে এনজিও কর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলো। এছাড়া, অবসর সময়ে সে বেনাপোল বাজারে মিশন কম্পিউটার ও একটি কসমেটিক্স দোকানে কাজ করতো বলে স্থানীয়রা জানায়।

নিহতের বোন লাবনী খাতুন জানায়, গভীর রাতে কে, বা কারা তাকে বাড়ি থেকে ডেকে বাহিরে নিয়ে যায়। এরপর সকালে তাকে বিছানায় না পেয়ে মোবাইল ফোনে খুজতে থাকি। হঠাৎ দেখি বাড়ির পাশে একটি গাছের নিচে শুইয়ে আছে। কাছে যেয়ে দেখি তার গলায় তার জাতীয় কিছু পেচিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এছাড়া তার মুখের মধ্যে একটি কাপড় দেওয়া ছিলো।

বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মামুন খান বলেন, খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছিয়ে লাশটি উদ্ধার করেছি। আলামত হিসেবে সেখান থেকে নয়নের ব্যবহৃত একটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে। আইনানুগ প্রক্রিয়া শেষে লাশটি ময়না তদন্তের জন্য যশোর মর্গে পাঠানো হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে কে, বা কারা তাকে দূরে কোথাও হত্যা করে লাশটি তার বাড়ির পাশে রেখে আসছিল। তবে, হত্যাকারি যেই হোক আর যতোবড় চালাক প্রকৃতির হোক আমরা তাদেরকে আটক করে আইনের আওতায় নিয়ে আসব। এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন বলে জানান তিনি।