আ.লীগ নেতাকর্মীর শরীরে এক বিন্দু রক্ত থাকা পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কোন ষড়যন্ত্র মেনে নেয়া হবে না …. সাবেক এমপি অ্যাড. মনির

টাইম ভিশন 24
কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ভাস্কার্য ভাংচুর ও অবমাননার প্রতিবাদে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়া বাজারে এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাঁকড়া, হাজিরবাগ, নির্বাসখোলা ও শংকরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যৌথ উদ্যোগে এ বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করা হয়।

শনিবার বিকালে বাঁকড়া দাতব্য চিকিৎসালয় মাঠে বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে হাজার হাজার নেতাকর্মী মিছিল নিয়ে উপস্থিত হতে থাকে। বিকাল থেকে স্থানীয় নেতাকর্মীরা বক্তব্য প্রদান করতে থাকেন। আছরবাদ যশোর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্নসাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুকুল, সাধারণ সম্পাদক মুছা মাহমুদ এর নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। বাঁকড়া বাজারের প্রদান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ শেষে বাঁকড়া দাতব্য চিকিৎসালয় মাঠে এসে মিছিলটি শেষ হয়।

মিছিল শেষে এক সংক্ষিপ্ত পথসভায় বক্তব্য রাখেন, যশোর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্নসাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুকুল, সাধারণ সম্পাদক মুছা মাহমুদ।
এসময় অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির বলেন, আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীর শরীরে এক বিন্দু রক্ত থাকা পর্যন্ত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানকে নিয়ে কোন ষড়যন্ত্র মেনে নেয়া হবে না। সকল ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা দাঁতভাঙ্গা জবাব দেবে। যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কার্য ভাঙ্গার মত ঔদ্বাদ্ধ দেখিয়েছে তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর ত্যাগ, ৩০ লক্ষ শহীদ আর দুই লক্ষ মা-বোনের সম্ভ্রামের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। সেই স্বাধীন দেশে মৌলবাদের কোন স্থান নেই। সাম্য-সম্প্রীতি আর অসাম্প্রদায়িকতার মধ্য দিয়ে আমরা বেঁচে থাকতে চাই। স্বাধীনতার জন্য এ দেশের সকল ধর্মের মানুষ জীবন দিয়েছেন। এ সম্প্রীতি আমরা কোনভাবেই নষ্ট হতে দিতে পারি না।

বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, হাজিরবাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মিন্টু, নির্বাসখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাস্টার এনামুল কবীর, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবুল কাশেম, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মীর বাবরজান বরুণ, হাজিরবাগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা আসাদুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক বজলুর রহমান, জেলা কৃষকলীগ নেতা আকবর হোসেন জাপানী, বাঁকড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মাস্টার হেলালউদ্দীন খান, শংকরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক শরিফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মাস্টার আদশ শফিউল্লাহ, নির্বাসখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আলমগীর হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা আজগর আলী, লিয়াকত আলী, আতিয়ার রহমান, গোলাম মোস্তফা, উপজেলা যুবলীগের যুগ্নআহবায়ক ইলিয়াজ মাহমুদ, যুবলীগ নেতা আশরাফুল ইসলাম, শাহ-আলম মিন্টু,সাদ্দাম হোসেন, আসাদুজ্জামান, তারিফ বিশ্বাস, নুরুল হক, সাবেক ছাত্রনেতা আবু সাঈদ মিলন প্রমূখ।