যশোরের রামনগরে জমি দখলের ঘটনায় শিক্ষকসহ ৮ জনের নামে আদালতে মামলা

বিএম মিলন,স্টাফ রিপোর্টার: যশোরের রামনগরে জোর পূর্বক জমি দখল করার ঘটনায় হারুন-অর-রশীদ (৭০) বাদি হয়ে যশোর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৮ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার বিবরণে জানাযায়,যশোর সদর উপজেলার রামনগর ইউনিয়নের রামনগর মোল্যাপাড়া গ্রামের মৃত নূর আলীর ছেলে হারুন-অর-রশীদ বাদি হয়ে একই গ্রামের খোদা বক্স মোড়লের ছেলে (১), মাদ্রাসা শিক্ষক কাদের আল আমিনী,মৃত আব্দুল ওহাবের স্ত্রী (২) সালমা বেগম, কাদের আল আমিনের স্ত্রী (৩) তাসমিয়া তাহসিন, মৃত মহসীন মোল্যার ছেলে (৪) ইব্রাহিম হোসেন, মগরেব আলী বিশ্বাসের ছেলে (৫) রবিউল ইসলাম, মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে (৬) জিহাদুল ইসলাম,আব্দুল করিমের ছেলে (৭) ইলিয়াজ কবির,মফিজ উদ্দীনের ছেলে (৮) সিরাজুল ইসলামকে আসামি করে গত ৯ ডিসেম্বর যশোর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। আদালত অভিযোগটি গ্রহণ করে যশোর কোতয়ালী থানার ওসিকে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দিয়েছেন।
বাদি মামলায় উল্লেখ করেছেন, আসামি পক্ষরা বাদির পৈত্রিক সূত্রে তফসিল বর্ণিত জমি কোতয়ালী থানাধীন ৮৮ নং রামনগর মৌজার হাল ৮১৭ খতিয়ানের হাল ৭৯৭ দাগের ২৪ শতকের মধ্যে সাড়ে সাত শতক জমি জোর পূর্বক দখল করে রেখেছে । তারই জের ধরে গত ১০ নভেম্বর সকাল অানুমানিক ১০ টার সময় বাদিপক্ষের তফসিল বর্ণিত জমিতে এসে আসামি পক্ষরা লাঠিসোটা,গাছ কাটা করাত, দা, দড়িসহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্রে-সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাদির জমি জোর পূর্বক দখল ও গাছ কাটার চেষ্টা করে। তখন বাদি নিষেধ করলে আসামিদের হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তাকে মারতে গেলে বাদি ভয়ে চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন ছুটে আসে। সে সময় আসামিগন বাদিকে জমি লিখে দিতে হবে, অন্যথায় ওই জমি জোর পূর্বক দখল করে নিবে। তখন তাদের কাজে বাধা দিলে বাদিকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে হয়রানিসহ খুন-জখম করে ফেলবে মর্মে হুমকি প্রদান করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এতে এলাকাবাসী মারাত্মকভাবে শান্তি-শৃংখলা ভঙ্গের আশংকা করছে।
শুধু তাই নয়, এই জমি নিয়ে বাদি হারুন-অর-রশীদ, কাদের আল অামিনীর বিরুদ্ধে গত ১৪/১১/২০১৯ সালে রামনগর ইউনিয়ন পরিষদে ও একটি অভিযোগ করেন। তখন আসামি পক্ষ কোন কাগজ পত্র দেখাতে পারে না। তাই পরিষদের পক্ষ হতে বাদির পক্ষে একটি প্রতিবেদন দেয়।
অপরদিকে, পৃথকভাবে
রামনগরে জোর পূর্বক একই জমি দখল করা নিয়ে বাদিসহ তার পরিবারে ৩ লক্ষ টাকার মানহানি করার জন্য হারুন অর রশিদ (৭০) বাদি হয়ে যশোর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সদর আমলী আদালতে মাদ্রাসা শিক্ষকসহ ৪ জনকে আসামি করে আরো একটি মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার বিবরণে জানাযায়,যশোর সদর উপজেলার রামনগর ইউনিয়নের রামনগর মোল্যাপড়া গ্রামের মৃত নূর আলীর ছেলে হারুন-অর-রশীদ বাদি হয়ে একই গ্রামের খোদা বক্স মোড়লের ছেলে (১) মাদ্রাসা শিক্ষক কাদের আল আমিন, মৃত মহসীন মোল্যার ছেলে (২) ইব্রাহীম হোসেন, মৃত আব্দুল ওহাবের মেয়ে (৩) সালমা বেগম, কাদের আল আমিনের স্ত্রী (৪) তাসমিয়া তাহসিনকে আসামি করে গত ৮ ডিসেম্বর যশোর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী সদর আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন। আদালত অভিযোগটি গ্রহণ করে যশোর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেষ্টিকেশনকে
( পি বি আইক) তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দিয়েছেন। মামলা নংঃ
সি আর-১৭২৬/২০,তারিখঃ ০৮/১২/২০।
বাদি মামলায় উল্লেখ করেছেন, আসামি পক্ষরা দাঙ্গাবাজ, মিথ্যা মামলাবাজ,উগ্র মৌলবাদী, সন্ত্রাসী প্রকৃতির। কুৎসা রটনা করিয়া মান হানী করাসহ নানা রকম অন্যায় ও অবৈধভাবে অর্থ উপার্জন করা তাদের পেশা ও নেশা। আসামিগন গত ৬ ডিসেম্বর বাদির বাড়ি সংলগ্ন রামনগর জামিয়া আশরাফিয়া দারুল মা’য়ারিফ মাদ্রাসার সামনে ওই মাদ্রাসার ছাত্রদের জড়ো করে সকল আসামিগনের উপস্থিতিতে ১ নং আসামি আলোচিত মাদ্রাসা শিক্ষক কাদের আল আমিনের নেতৃত্বে বাদি ও বাদির পরিবারের নামে মিথ্যা স্লোগান সহ রাজাকার,আলবদর, পরসম্পদলোভী বলে বাদি ও তার পরিবারের সদস্যদের হয়রানি ও সমাজে তাদেরকে হেয় পতিপন্ন করার জন্য কুৎসা রটনা করে। পরবর্তীতে আসামিগনের মানহানিকর বক্তব্য নিয়ে প্রতিবেশীরা বাদি ও তার পরিবারকে নিয়ে হাসি ঠাট্টা করতে থাকে। এমতাবস্থায় বাদি ও তার পরিবারের লোকজনের সমাজে মান-সম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য আসামিগন দঃবিঃ ৫০০/৫০১ ধারায় অপরাধ করেছে। এ ঘটনায় বাদি ও তার পরিবার ৩ লক্ষ্য টাকার ক্ষতি গ্রস্থ হয়েছে।
এছাড়া ও আলোচিত মাদ্রাসা শিক্ষক কাদের আল আমিনীর বিরুদ্ধে এলাকায় নানা অভিযোগ রয়েছে। তার এহেন কর্মকান্ডে অতিষ্ঠ মানুষ পরিত্রাণ চাই। প্রশ্ন উঠেছে এই ধুরন্ধর ব্যক্তির খুঁটির জোর কোথায়?
এ ঘটনায় বাদিসহ তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।
এ বিষয়ে ভুক্তভোগীসহ তার পরিবার প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ
করেছেন।