না ফোঁটা কলির গল্প পর্ব (০৬) : কাঞ্চন চক্রবর্তী

না ফোঁটা কলির গল্প পর্ব (০৬)
কাঞ্চন চক্রবর্তী

অনেক শিক্ষিত। পরদিন ঢাকা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে দাড়িয়ে আছে কখন তনু আসবে,সে অপেক্ষায় প্রহর গুনছে তারিক, কিছুক্ষণ পর তনুর মাইক্রবাসটি প্রধান ফটকের সামনে এলে তারিক তাকে এক পলক দেখে সামান্য একটু দূরে সরে গিয়ে মুঠো ফোনটা পকেট থেকে বের করে তনুকে একটা কল দিল,তনু ফোনটা রিসিভ করতেই গুডমর্নিং ম্যাম,গুড মর্নিং কে বলেছেন? ম্যাম এ অধম বান্দার নাম তারিকুল হাসান ওরফে তারিক, জী বলুন কেমন আছেন?জী ভাল, আপনি? আলাহাম্দুলিল্লাহ, আপনি নিশ্চয় এখন কলেজে? জী, কিন্তু আপনি জানলেন কি ভাবে? মেধাবী ছাত্রী এখন তো কলেজেই থাকার কথা তাই নয়কি? তা অবশ্য ঠিক,তা এখন কি করছেন কোথায় আছেন? এখন অফিসে আছি কিছুক্ষণ পর একটা মিটিং আছে,হাতে কিছুটা সময় আছে তাই আপনাকে ফোন দিলাম
ও আচ্ছা, একদিন আসুন না,কোথাও বসে এককাফ কফি খাই, তা কোথায় বসবেন? গুলশানের ইজুমি চাইনিচ রেষ্টুডেন্টে আগামী কাল বিকাল পাঁচটায়, ওকে আমি আসবো, ওকে এখন রাখছি আমার মিটিং এর সময় হয়ে গেছে কাল দেখা হচ্ছে খোদা হাফেজ, খোদা হাফেজ। যেহেতু তারিকের পূর্বেই মাষ্টার প্লান তৈরী করা আছে কখন কি করতে হবে সে বিষয়ে তার নিজের লোককে বুঝিয়ে রেখেছে, পরদিন সকাল দশটায় তনু হোটেল ইজুমিতে এসে অপেক্ষা করছে, কিন্তু তাকিকের কোন দেখা নাই,অনেক বিরক্ত হয়ে তনু মুঠোফোনে ফোনদিল অপর প্রান্ত থেকে তারিকের ফোনটি রিসিভ করলো

পর্ব ০৭
না ফোঁটা কলির গল্প
অন্যজন “হ্যালো ম্যাম আমি তারিক সাহেবের পি এস বলছি, আমরা পাঁচ মিনিটের মধ্যে পৌছে যাব ইনশাল্লা” বলে ফোনটি কেটে দিল,কিছু মূহুর্ত পর কোটিটাকা দামের এসি মাইক্র বাসটি এসে দাড়ালো হোটেল ইজুমির সামনে, তনু হোটেলের যে টেবিলে বসেছে সেখান থেকে হোটেলের প্রবেশ পথের ঠিক সামনে,মাইক্রবাসটি এলো তনু তা দেখতে পেল,পিএস এসে মাইক্রোর বাসের দরজা খুলে দিলে ভিতর থেকে বেরিয়ে এলো তারিক, সাথে পি এসের হাতে ব্রিফকেস,তারিকের চোখে দামী সানগ্লাস গায়ে আধুনিক মডেলের জামা কোট টাই সাথে বিদেশি পারফিউম চুলগুলি সিনেমার নায়কের মত করে কাটানো আল্লাহ পাঁকের রহমতে দেখতে গায়ের রং দুধে আলতা মেশানো, যে কোন মেয়ে তাকে প্রেমের প্রস্তাব দেবে তাতে কোন সন্দেহ নেই,তারিক হোটেলে প্রবেশ করেই তনুর টেবিলের সামনে এসে বসলো “হুয়ার আর উই তনু? তনু ইতোস্থ করে বললো “ফাইন,বাট উই?” “আই এ্যাম তাকিক “চৌধুরী গ্রুপ অব” তনু মাঝখানে থামিয়ে দিয়ে বললো “থাক-থাক আর বলতে হবেনা এবার বুঝেছি আপনি তারিক হাসান তাইতো?” তারিক বিনয়ের সাথে বললো “জী ম্যাম এই অধম বান্দার নাম তারিক হাসান” “কি বলছেন আপনি? আপনি হোলেন চৌধুরী গ্রুপ অবইন্ডাট্রিজের কর্ণধর নিজেকে অধম হিসাবে পরিচয় দিচ্ছেন কেন?” ” কি যে বলেন,মানুষ মরণশীল আজ মরলে কাল দুইদিন, আল্লাহ পাঁকের কথায় দুনিয়াতে এসেছি আবার তার কথা মত চলে যাব কি হবে এমন প্রাচুর্যের দম্ভ করে?তাই আমি

চলবে- – – – –