বিশ্বাসের প্রতিদান বিশ্বাসঘাতকতা :নুর মোহাম্মদ মেহেদী

বিশ্বাসের প্রতিদান বিশ্বাসঘাতকতা
নুর মোহাম্মদ মেহেদী

টাইম ভিশন 24:সে আনেক বছর আগের কথা।
আমরা যখন সাত বন্ধু বান্ধবী ছিলাম।
পুরো স্কুল মাতিয়ে তুলতাম।
SSC দিবার পর হয়তো সবাই আলেদা আলেদা জীবন গঠন করার জন্য এই দিক ও দিক ছুটা ছুটি করতে লাগলাম তার মাঝে কেউ বিয়ে বসে গেছে কেউ পড়াশোনা নিয়ে বিজি আছে আমি আর কি বা করবো ছোট একটা জব নিয়ে পড়ে আছি হঠাৎ তিন বছর পর লাবনী নামে এক বান্ধবীর সাথে দেখা সবার খোঁজ নিতে লাগলাম সবার খোঁজ নেওয়া শেষে সে বলে উঠলো মিলি নামে আমাদের যে বান্ধবী ছিলো সে তো আর নাই বাকি রা সবাই আছে। আমি তো অবাক চোখে তার দিকে তাকিয়ে আছি বলোস কি হলো ওর আরে সে পৃথিবীতে না । নাই মানে শুন তাহলে পুরো কাহিনি তুই তো জানোস না SSC দিবার পর এক ছেলের সাথে রিলেশন হয় তার বছর খানেক আগে ২ পরিবার মেনে নে তাদের বিয়ে হয় কারণ ছেলে ভালো প্রষ্ঠিত তাই । এতো ৬মাস আগে ঢাকাতে চলে যাই
কিছু দিন আগে শুনছি তার জামাই লন্ডন যাবে অফিসের কাজে এখন সে ঢাকাতে একা এক মাসের জন্য যাচ্ছে ছেলে টা অনেক ভেবে চিনতে তার ২ কোল্জ বন্ধু দের কাছে রেখে যাই যাবার সময় বলে তোর ভাবী কে দেখে রাখিস যাই হোক চলতেছে হাসি তামাশা করতে করতে ১৬ দিন গেলো তাদের মধ্যে এক জনের নজর পড়ে গেলো পর দিন সে এসে বলে ভাবী আমি তোমার সাথে এক রাত থাকতে চাই তুমি কি বলো ভাই তো নাই। তখন মিলি বলে জুতার বাড়ি খাইবার আগে এইরখান থেকে যা আর কনো দিন সমনে আসিস না সে চলে গেলো গিয়ে তার পরের বন্ধু কে সব বলে বলার পর সে সহও একটা পেলান করে করা শেষ লন্ডনে কর করে বলে তোর বন্ধু এই এই কাজ টা করছে তোর বউয়ের সাথে আমি অনেক বকা দিছি ক্ষমা করে দে। পৃথিবীতে ক্ষমা টা হলো আসল গুন যাই হোক পরে বলে তোর ভাবীর কাছে গিয়ে ক্ষমা চেয়ে আয় আর আমিও আসতেছি বেশি দিন নাই ১০ দিনের মতো আছে আর পর দিন সময় করে ২জন যাই তাদের কে দেখে মিলি বলে ভাই তুমি ওরে কেন আনছো ও সে দিন আমারে এই কথা বলছে৷ সে জন্য ক্ষমা চাইতে আসছি বলে ভালো করে দরজা লক করে বলে সে দিন এক জন কে পেয়ে জুতা দিয়ে বাড়ি দিবি বলছোত আজ ২ জন আছি কি করবি কর আমরা ২ জন তোর সাথে থাকবো এখন সব কিছু খোল মিলি মোবাইল নিতে গেলে হাত থেকে মোবাইল নিয়ে পেলে তার পর এক এক করে শরিলের সব জামা খুলে পেলে পুরো উলঙ্গ করে খাটের উপর রেখে হাত পা রশি দিয়ে বেঁধে তার পর টানা ২৪ ঘন্টা ২ জন রেপ করতে থাকে একের পর এক মিলি আর অত্যাচার সজ্জ না করতে পেরে বলে আমার ছেড়ে দে তোদের থেকে মাপ চাই কিন্তু কোপালে তে যেন আছে মৃত্যু কে বা ফিরায় শেষ পযন্ত মিলিকে মেরে পেলে তার পর সব প্রমান লুকিয়ে গলার সাথে বশি দিয়ে জুলায় দিয়ে চলে যাই আত্যহত্তা বলে চালিয়ে দিবে ২ জন যার যার মতো চলে যাই পর দিন সবার কাছে কল দিতে থাকে জামাই কেউ কল দেরে না পরে লাবনী কে কল দে সে দরে কথা বলে তার বাসায় যাই গিয়ে দেখে বিতর থেকে কনো সাড়া শব্দ নাই মিলি মিলি বলে ডাক তে থাকে কনো যোগাযোগ নাই পরে কনো মতে বাহির থেকে লোক জন জোগাড় করে দরজা বেঙ্গে বিতরে ডুকে দেখে সে জুলানো রশির সাথে
তার পর নামিয়ে নিয়ে আসে জামাই কে কল দিয়ে বিষয় টা জানায় সে সাথে সাথে বাংলাদেশ আসার জন্য সব কিছু রেডি করে রওনাদে তার এসে মাটি দে। কিন্তু তার মনে একটা জিনিস গুরতে থাকে বিষয় টা কেমনে গটলো পুলিশ কে জানায় তারা কনো কিছু পেলো না লাশ কবর থেকে তুলে আবার সব কিছু করে কনো কিছু পেলো না। তার পর এক দিন লাবনী স্বপ্নে দেখতে পাই মিম কে আর মিম সব কিছু বলে খুলে কিন্তু লাবনী বিষয় টা কনো মতে বুঝতে পরতেছে না কি করে বিষয় টা বুঝাবে তার পর এক দিন কালো জাদু বা মেজিক এর সাহায্য নিয়ে তার জামাই কে পুরো বিষয় টা শুনাই মিমের আত্মা কালো জাদুর কারণে জামাইর শরিলে মিমের আত্মা আসে । তার পর সে একটা পেলান রেডি করলো তাদের কে মেরে পেলার কিন্তু করো উপাই পেলো না এক দিন সবাই মিলে বসলো মিমের জামাই, লাবনী, ২ছেলে বন্ধু সবাই মিলে কক্সবাজার যাবে সবাই রাজি হলো এখন তার পেলান অনুয়ায়ী রুম লাগবে ৪ টা নিলো কিন্তু কিছু টা রাত যাবার পর বলে সবাই এক সাথে থাকবে তার পর ৩ছেলে এক সাথে থাকার বিষয় হলো আর লাবনী আলেদা রাত তখন ৩ টা বাজে পেলান মতো লাবনীর কাছে ছেলে টা গেলো গিয়ে বলে তুই তো জানোস তোর বান্ধবীর প্রতি যদি ছেলে ২টার এতো লোভ থাকে তাহলে তো তোর উপর থাকতে পারে এাটারে ছাদে ডাক একলা ওকে ডাক দিলো হেলো জমির ছাদে আসো আমার থেকে কেমন কেমন লাগে একটু এসে এাক সাথে বসি ভালো লাগবে আসলো জমির তার পর ছেলে টা আসলো পেলান মতো লাবনী সহও দরে ছেলে টাকে ছাদ থে পেলে দে তার পর সেম কলে বাকি বন্ধু সেলিম কে কল দিয়ে ছাদে ডাকা তার পর ২ জন মিলে তাকে ছাদ থেকে পেলে দে। ২ জন নিছে এসে যার যার রুমে ঘুম যাই সকালে যার যার মতো শহরে চলে আসে প্রমানের অভাবে মিলির মৃত্যুর কনো বিচার হয়নি তেমনি জমির আর সেলিমের ও হয় নি প্রমানের অভাবে।