টাইম ভিশন 24
যশোর প্রতিনিধি : যশোর জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি ) পুলিশ আন্তঃজেলা ইজিবাইক চোর চক্রের ৮ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে । এসময় ৮টি ইজিবাইক, মাস্টার চাবি, চুরি করার যন্ত্রপাতি উদ্ধার করা হয়েছে। আটককৃতরা হলো, যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি ইউনিয়নের আমবটতলা সাজিয়ালি এলাকার আব্দুল আজিজের ছেলে রাজু ওরফে বড় রাজু, খুলনার দিঘলিয়ার হাজিগ্রাম উত্তরপাড়া গ্রামের বাবুল মোল্যার ছেলে রাজু মোল্যা, যশোর শহরের শংকরপুর এলাকার নুরনবী মেম্বারের বাড়ির ভাড়াটিয়া ইয়ার আলী মোল্যার ছেলে শাহাদৎ, একই এলাকার পানির ট্যাংকির পাশে মৃত মিজান শেখের ছেলে আনারুল ইসলাম, যশোর সদরের ধর্মতলার জাকির সরদারের ছেলে শাহিন, নুরপুর দক্ষিণপাড়ার জামাল গাজীর ছেলে রবিউল ইসলাম গাজী, যশোরের মণিরামপুর উপজেলার দোনার গ্রামের আশরাফ আলী বিশ^াসের ছেলে সোহেল রানা, খুলণার হরিণটানা থানার কৈয়াবাজারের মৃত ইসমাইল হাওলাদারের ছেলে সুমন হাওলাদার। শনিবার ৭ নভেম্বর দুপুরে প্রেসব্রিফিং এ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশরাফ হোসেন এ তথ্য জানান।
তিনি জানান, ২ নভেম্বর রাতে কোতয়ালি থানার সরদার বাগডাঙ্গা গ্রামে নুর ইসলামের গ্যারেজের তালা ভেঙ্গে গ্যারেজের মধ্যে একই গ্রামে ইজিবাইক চালক কলিম বিশ^াস ও পুলতাডাঙ্গা গ্রামের সাইফুল ইসলামের ২টি ইজিবাইক চুরি হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়। একাধিক চুরির ঘটনায় পুলিশ চোরদের গ্রেফতার ও রহস্য উদঘাটনের জন্য যশোর কোতয়ালি থানা ও ডিবি পুলিশের চৌকস দল অভিযান শুরু করে। এরপর পুলিশ সুপার মামলাটি তদন্তের জন্য ডিবি পুলিশকে দায়িত্ব দেন।
পুলিশ সুপার জানান, যশোর জেলা গোয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জ সোমেন দাশের নেতৃত্বে ডিবি’র এসআই মফিজুল ইসলাম, এসআই শামীম হোসেনসহ অন্যান্য অফিসার ও ফোর্স গোপন তথ্যের ভিত্তিতে শুক্রবার বিকালে শহরের পালবাড়ী মুর্তির মোড় হতে সংঘবদ্ধ ইজিবাইক চোর-চক্রের ইজিবাইক চুরি করার সলা পরামর্শের সময় মাস্টার চাবিসহ ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করে। তাদের স্বীকারোক্তি মতে যশোর সদরের নুরপুর হইতে ১ জনকে ও মনিরামপুর রাজগঞ্জ হইতে ১ জনকে গ্রেফতার পূর্বক তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক কেএমপি খুলনার হরিনটানা থানাধীন কৈয়া বাজার মুল হোতাকে গ্রেফতার পূর্বক হরিনটানা ও সোনাডাঙ্গা থানা এলাকা থেকে মামলার ২টিসহ ৮টি চোরাই ইজিবাইক উদ্ধার করে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে আন্তঃ জেলায় বিভিন্ন থানায় একাধিক চুরি মামলা রয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়।
প্রেসব্রিফিংএ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম ডিবির অফিসার ইনচার্জ সোমেন দাশসহসহ পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্য উপস্থিত ছিলেন। পুলিশ সুপার বলেন,উদ্ধারকৃত ইজিবাইকের মধ্যে মালিক বিহীন ৬টি পুলিশ লাইনে রাখা রয়েছে। উপযুক্ত প্রমান সাপেক্ষে সেগুলি দেওয়া হবে। সাংবাদিকদের মাধ্যমে তিনি উদ্ধারকৃত চুরি যাওয়া ইজিবাইকের মালিকদের দৃষ্টি আর্কষন করেন।