টাইম ভিশন 
যশোর প্রতিনিধি: পাওনা টাকা চাওয়ায় গাড়ির চালক কুদ্দুস হোসেন (৪৬)কে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এসময় তার ছেলে বিপ্লব হোসেনকে (২৫) কুপিয়ে মারাত্মক জখম করা হয়েছে। নিহত কুদ্দুস হোসেন যশোর সদর উপজেলার নওদাগা গ্রামের কাকিখার ছেলে। কুদ্দুস হোসেন যশোর মেডিকেল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ডা. শরিফুল আলমের গাড়ির চালক ছিলেন।
কুদ্দুস হোসেনের স্ত্রী বালিকা খাতুন জানান, বিপ্লবের স্ত্রীর বৃষ্টি (২০) কাছ থেকে যশোর শহরের ঢাকা রোড এলাকার সেলিম হোসেনের কাছে সোনার গহনা বিক্রি করে। যার মুল্য ৪০ হাজার টাকা। মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) বিকালে বিপ্লব ও তার পিতা কুদ্দুস হোসেন পাওনা টাকা চাওয়ার জন্য সেলিমের বাড়িতে যান। এসময় সোনার গহনা ক্রেতা সেলিম ও লিচুবাগান এলাকার সম্রাট তাদেরকে কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে সার্জারি বিভাগের ডাক্তার আব্দুর রহিম মোড়ল কুদ্দুস হোসেনকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে জানিয়ে তিনি জানান, লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। কোতয়ালী থানার উপ-পরিদর্শক(এসআই) মনিরুজ্জামান জানান, আহত কুদ্দুস হোসেনের মৃত্যু হয়েছে। তার ছেলের অবস্থা আশংকাজনক। যশোর কোতয়ালি মডেল থানার ওসি (অপারেশন) আবু হেনা মিলন হত্যার সাথে জড়িতদের আটকের জন্য পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।