মানুষ নামের অমানুষ  : জাহান আরা খাঁন (কোহিনূর)

মানুষ নামের অমানুষ 
জাহান আরা খাঁন (কোহিনূর)
বেদনার বালুকাবেলায়
বসে ভাবি নির্জনে
স্বার্থের টানে রক্তের প্রিয় মানুষ গুলো
স্বার্থবিহীন চিনেনা কাউকে
রঙ মাখা খোলসে ঢাকা
মস্তিষ্ক থেকে পাঁয়ের তলা
শুধু দ্বন্ধ সৃষ্টি ওদের কাজ
সুখ বলতে এদের জীবনে কিছুই নাই
অন্যের সুখে এরা ভীষন কষ্ট পায়,
এদের মুখের ভাষা খুব নোংরা
বেসুর কাঁকের মত কর্কশ ওদের কন্ঠস্বর।
অন্যের সম্পদ লুন্ঠনে নাই ওদের দ্বিধা
সত্যকে লুকিয়ে মিথ্যার হুল দেয় ফুটিয়ে।
স্বার্থপর মানুষ গুলো নৃসংসতায়
হয়েছে মানুষ নামের অমানুষ
সমাজের কাছে সাজে এরা মহামানুষ
বিষাক্ত ওদের ছোবল থেকে
নিজেকে বাঁচিয়ে রাখা দায়
কারো হৃদয় পড়ার সময় ওদের নাই
নষ্ট মানুষগুলো এই কাজ করে ভীষন সুখ পায়।
পরপারের ভয় ওদের নাই
নিজের স্বার্থ নিয়ে বেঁহুশ হয়ে যায়
অন্তর দৃষ্টি একদম গেছে এদের মরে
বিধাতাকে বলি কেনো দিলে
মানুষ নামের দানব আমার জীবনে
শাঁখের করাতে কাঁটে দিনে রাতে
নিয়তি কেনো খেলছে পদে পদে?
মহামানুষ গুলো সুযোগ পেলেই নির্যাতনের
বিষাক্ত কালনাগিনীর ছোবল মারে।
পথ চলি নিঃশব্দ চরনে
এই পথের যন্ত্রনা কেহ নাহি বোঝে,
মন চায়, এদের থেকে দুরে চলে যেতে
নির্জন কোনো দীপে।
মানুষ নামের মানুষ আছে দুনিয়া বোঝায়
অমানবিকতায় মানুষ আর মানুষ নাই,
নিষ্ঠুরতা জিঘাংসাতে হৃদয়টা
ভেঙে হয়েছে চুর,
মানুষ রুপি দানব যারা তোমার বিচারে
কঠিন সাজা দাও বিধাতা।