ছলনাময়ী নারী : কাঞ্চন চক্রবর্তী

পর্ব (৩৬)
ছলনাময়ী নারী
কাঞ্চন চক্রবর্তী
তোমাকে রিসিভ করতে, তুমি ওদের সাথে চলে এসো” কথা শেষ না হতেই রমিজের সামনে হাজির সেই দু’জন লোক,একজন তাকে বললো “আসসালামো ওয়ালাইকুম দুলাভাই” “আমি জীবনে একবার ও বিয়ে করিনি তোমাদের দুলাভাই হলাম কেমনে? আপনাদের তো চিনতে পারলাম না” “রূবি ম্যাডামের মাথা ব্যথা করেছে তাই ম্যাডাম গাড়িতে বসে আছে, আপনাকে নিয়ে যেতে বললেন” “ও তাই? চলো” রূবি রমিজকে আসতে দেখে পিস্তলটা হাতে নিয়ে গুলিটা লোড করে নিল নিশানা করে রমিজের পাশ দিয়ে যাওয়া একজন পথ চারীকে গুলি করে দিল,সাথে-সাথে লোকটি মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়লো,সাথে-সাথে লোকদু’টি রমিজকে কিল ও ঘুষি মারতে লাগলো ঠিক ঐ সময়ে রুবি গাড়ি থেকে নেমে টাকার থলিটা রমিজের হাত থেকে কেড়ে নিয়ে দৌড়ে পালালো,গুলির শব্দ শুনে টহল পুলিশের দল এসে ওদের তিনজন কে ঘিরে ফেললো,সহকারী পুলিশ অফিসার বললো “কে মার্ডার করলো?” “স্যার এই লোকটা (মৃত্যু ব্যাক্তিকে দেখিয়ে) এই পথচারী কে গুলি করেছে,এ একটা ছিনতাই কারী,এর সাথে আরো লোক ছিল,তারা পালিয়ে গ্যাছে আমরা একে ধরে ফেলেছি, একে থানায় নিয়ে ভাল করে ধুলাই দিলেই আসল সত্তি কথা বেরিয়ে আসবে, পুলিশ অফিসার জিজ্ঞাসা করলো “ঘটনার সময় আপনারা কোথায় ছিলেন?” “স্যার আমার নাম বাবর আলী আর ওর নাম জব্বারালী আমরা দু’জনে গাবতলি আসছি আমাদের একজন মেহমান যশোর থেকে আসবে তাকে রিসিভ করতে, আর ঘটনাটা ঘটলো আমাদের চোখের সামনে” “ঠিক আছে আপনা দের পুরা ঠিকানা বলুন” তারা

চলবে- – –