ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধি: যশোরের ঝিকরগাছায় ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়–য়া এক শিশুকে (১২) শ্লীলতাহানীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ৮ অক্টোবর সকাল ৬টার দিকে উপজেলার পানিসারা ইউনিয়নের মোহিনীকাটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই শিশুর বাবা ঝিকরগাছা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পরে তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত বেজিয়াতলা উত্তরপাড়া গ্রামের মো. ফিরোজের ছেলে মোহন মিস্ত্রিকে (২৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মামলার বাদী মেয়ের বাবা তার অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, ‘আমার মেয়ে রাজাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ালেখা করে। প্রতিদিনের ন্যায় ৮ অক্টোবর সকাল ৬টার দিকে প্রাইভেট পড়ার জন্য বাইসাইকেলযোগে মোহিনীকাটি গ্রামের এক শিক্ষিকার বাড়ির উদ্দেশে রওনা হয়। পথিমধ্যে মোহিনীকাটি দক্ষিণপাড়া জামে মসজিদ সংলগ্ন ইউনুসের বাড়ির সামনে পৌঁছালে আসামি পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আমার মেয়ের গতিরোধ করে এবং পেছন দিক থেকে স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে আজেবাজে কথা বলতে থাকে। পরে তার ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে আসামি দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।’ তিনি বলেন, মেয়ের কাছ থেকে ঘটনা শুনে সঙ্গে সঙ্গে মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কর্মসূচি ব্রাকের ঝিকরগাছা অফিসার মাইফুন্নেছাকে জানাই। তার পরামর্শক্রমে ঝিকরগাছা থানায় আসি এবং অভিযোগ দায়ের করি। পুলিশ তাৎক্ষণিক আসামিকে আটক করে। এ বিষয়ে ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক বলেন, মেয়ের বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে আসামি গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। পরে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আসামিকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।