পর্ব (২০)
ছলোনাময়ী নারী
কাঞ্চন চক্রবর্তী

“ভাবি তুমি ভাইকে একটু ম্যানেজ করো, ফিরে এসে আমি তোমাকে সব কিছু বললো” “কি বলবো তোমার ভাইকে? বলবো তোমার ভাই একটি মেয়ের সাথে অভিসারে গ্যাছে আজ রাতটা তার সাথে কাটাবে এরকম?” “আমি জানি তুমি তেমনটি বলতে পারবেনা,তুমি যে ভাবে পারো বোঝাবে” “ওকে ঠিক আছে তাই হবে” “ভাবি তাহলে আমি কলেজে গেলাম” “নাস্তাতো করে যাও” “কলেজ ক্যানটিনে করে নেব ভাবি” রমিজ দ্রুতগতিতে
বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেল,ভাবি কিছুক্ষন তার যাবার পানে চেয়ে রইলো। কলেজের ক্লাস শেষ করে
রমিজ যশোরের উদ্দ্যেশে বাসে চেপে বসলো,প্রতীক্ষার প্রহর যেন শেষ হতে চায়না,অবশেষে বাস থেকে নেমে পৌছে গেল রূবির বাড়িতে,পূর্ব থেকে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রেখেছে রূবি, যাতে এবারে মাষ্টার প্লানটা যেন সম্পন্ন হতে কোন প্রকার অসুবিধা না হয়, মেয়ে দের ষোল কলার কাছে গোটা পুরুষ জাতি যেখানে মাথা নত করতে বাধ্য সেখানে গ্রামের সাধারণ রমিজ সেতো তুচ্ছ মানুষ মাত্র,রমিজ রুমে প্রবেশ করতেই রুবি দৌড়ে এসে রমিজকে বুকের সাথে জড়িয়ে ধরে বললো “তোমাকে কতদিন দেখিনি” “কি বলো? মাত্র পনেরদিন আগেই তো আমরা একসাথে ছিলাম” “পনের দিন মানে তো আমার কাছে পনেরো বছরের সমান, তুমি চেঞ্জ করে নাও আমরা একসাথে বসে ড্রিস করবো” “ওকে তাই হবে মহারানীর যেমন ইচ্ছা” রমিজ চেঞ্জ করে রূবির রুমে গিয়ে বসলো, রুবি আজ শেষ বোমাটা ফাঁটাবে তাই সে আগ থেকে সাজিয়ে গুছিয়ে রেখেছে এক কথায় সমস্ত প্রস্তুতি সে সু-সম্পন্ন করে করেছে।

চলবে- – – –