প্রিয় অনুজ কামালের স্মরণে : এম এ কাসেম অমিয়

প্রিয় অনুজ কামালের স্মরণে
এম এ কাসেম অমিয়

বিষন্ন সন্ধ্যায় বসে আছি ভগ্নমনরথে, বিষন্ন মনে।
আবছা মেঘে ঢাকা চাঁদও আজ যেন বিষন্ন।
কিছুই না বলে হঠাৎ, তুমি পরপারে গেলে চলে।
সকলেরে কাঁদায়ে তুমি, দুঃখের সাগরে ভাসালে।

কি অভিমানে গেলে চলে নিজেকে করে নিঃশেষ।
এত তাড়াতাড়িই হয়ে গেল তোমার দিন শেষ।

তোমায় ছাড়া কিভাবে থাকব মোরা, সে তুমি ভাবলে না।
ভাইজান বলে সেই মধুর ডাকটি আর কোনদিন ডাকবে না।
আর কোনদিন বলবে না, আমার বাড়িতে একটিবার আসেন না।

তোমার দু’টি নয়নের মণি, তিথি আর নওশীন।
তাদেরও তুমি যাবার বেলায় দেখলে না।
চিরসাথী ছিল তোমার, তাকেও তুমি–
ঝুনু বলে আর কোনদিন ডাকবে না।

মন মানে না, খুঁজে এলাম হেথায়-সেথায়—
হায় ! কোথাও পেলাম না তোমায়।

খুঁজে এলাম পাটেশ্বরী বিলের বিশালতায়।
পেলাম না তোমায়—-
পেলাম তোমায়, বিশাল হৃদয়ের গভীরতায়।

খুঁজে এলাম মধুমতি নদীর কুল-কুল স্রোতধারায়।
পেলাম না তোমায়—
পেলাম তোমারে মানুষের ভালবাসার ফল্গুধারায়।

খুঁজে এলাম তোমায় তোমারই প্রিয় আঙিনায়।
পেলাম না তোমায়—
পেলাম তোমার পদচারনার ছাপ সারা বাড়িময়।

খুঁজে এলাম তোমার চৌচালা টিনের ঘরখানায়।
সেখানেও তো পেলাম না তোমায়—
পেলাম তোমার হাতের ভালবাসার ছাপ।

কি করে পাব তোমায়!
তুমি তো চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছ পিতা-মাতার কোলে।
পাখির কলতানে মুখরিত, ছায়া-সুনিবিড় শান্তির নীড়ে—-
আমতলা গ্রামে, মধুমতির অববাহিকায়।
ভাল থেক, শান্তি তে থেক, রইল মোর এই কামনায়।