ছলোনাময়ী নারী : কাঞ্চন চক্রবর্তী

পর্ব (০৯)
ছলোনাময়ী নারী
কাঞ্চন চক্রবর্তী

কথাগুলি তোমাকে বললে নিজের কাছে বড় খারাপ লাগবে,(কাঁদতে-কাঁদতে)তাছাড়া আমি তোমার কাছে ছোট হয়ে যাবো, আর তোমার দ্বারা সম্ভব ও নয়, তুমি পারবে না কারন তোমার সে এ্যাবেটিলি নেই, ঠিক আছে আমি পারি আর নাইবা পারি অন্তত আমার কাছে শেয়ার তো করতে পারো, তুমি যখন এতো করো বলছো তবে শোন,আমার বাবা আমেরিকা গ্যাছে ব্যবসার কাজে সেটা তো তুমি জানো?হ্যা জানিতো!বাবার ফিরতে প্রায় ১৫ দিন সময় লাগবে, মায়ের বুকের ব্যথাটা বেড়েছে এখনি যদি অপারেশান করা না যায় তাহলে মা হয়তো আর কোনদিন বাচবে না, তার জন্য প্রয়োজন পাঁচলক্ষ টাকা, আমার কাছে তেমন টাকা নেই,তুমি কি আমাকে টাকাটা ধার হিসাবে দিতে পারবে? বাবা ফিরে এলেই তোমাকে দিয়ে দেব। আচ্ছা ঠিক আছে দেখি আমি তোমার জন্য কিছু করতে পারি কিনা,দেখ রমিজ আমার বাবার ভবিষৎ সব সম্পতির মালিক আমি, আর আমি মানেই তো
সব কিছুর মালিক তুমি,সামান্য কষ্ট হলেও আমি তোমাকে এক’শ গুন
পুষিয়ে দেবো তুমি কোন চিন্তা করো না, রূবি রমিজকে বুকের সাথে জড়িয়ে ধরলো এবং চুম্বনে-চুম্বেনে ভরিয়ে তুললো,রমিজ নিজেকে আর ধরে রাখতে পারছে না,রূবি জড়িয়ে ধরে বেড রুমে নিয়ে নিজে প্রস্তুত হয়ে গেল, রমিজ আবারও রূবির যৌবন সাগরে ঝাপ দিয়ে পরিপূর্ণ স্নান শেষ করলো,রমিজ ফ্রেস হয়ে রূবিকে টাটা জানিয়ে নিজেকে গুছিয়ে নিয়ে বেরিয়ে পড়লো নিজের বাড়ির পানে, রূবি রমিজকে বিদায় দিয়ে মুখে সুন্দর একটা মুচকি হেসে কপাট বন্ধ করলো।

চলবে- – –