রঙিন ফেস্টুন : কে এম মেহেদী হাসান

রঙিন ফেস্টুন
কে এম মেহেদী হাসান

লাগানো শহরের দেওয়ালে বিশিষ্টদের___
রঙিন ফেস্টুন।
ফেস্টুনের ভরে ক্লান্ত হয়েছে আজ____
বিদ্যুতের পোলটিও।
শুনি এগুলো নাকি বিশিষ্টদের,
সমাজে তুলে ধরার চিত্র।
মানবতার বিশিষ্ট মানুষ গুলো শুধু_____
শহর গ্রামের দেওয়ালেই ঝুলন্ত।

কষ্ট লজ্জায় ভুগি!
যখন দেখি প্রত্রিকায় নিউজের হেডলাইনে, __
চুরি ছিনতাইয়ের বিচারের কবলে___
বিশিষ্ট ফেস্টুনদের মাঝেই কেউ একজন।
তবে,__তবে তাদের বিশিষ্টতার বহিঃপ্রকাশ শহরের দেওয়ালে বিদ্যুতের পোলেই কি সীমাবদ্ধ?
এ যেন ভালো’র মাঝে___
লুকিয়ে থাকা কিছু অর্থলোভী শয়তান।

কিছু বাবুও আছে এমন!
টাকার সম্মানিত সম্মানীও ব্যক্তিত্ব।
টাকার সম্মানিত ব্যক্তিটি____
স্ট্রিংয়ের পিছে বসে থাকা।
অথচ, __
অথচ দিনমজুর ড্রাইভার___
স্ট্রিং ছেড়ে গেট না খুললে____বাবু নাকি,
বেরোতে পারেন-না গাড়ি থেকে।
এটা নাকি টাকাওয়ালা সম্মানিত ব্যক্তিদের___স্টাইল।
টাকাওয়ালা ফটফটিয়ে ইংরেজি বলা মানুষ বলে কথা!

ফুচকার দোকানেও, একালিন বাহারি রঙের চুল সজ্জিত নরনারীর ভিড়।
কলেজের ক্লাসে গল্পের মাঝেই বিষয় শেষের ঘন্টা বাজে। __
তাতে কি এমন আসে যায়!
কিছু বেতনভুক্ত প্রভাষক খুলে বসেছে হাজার টাকায় প্রাইভেট রুম।
সে রুমে এলাও হয় না____
হতদরিদ্র পরিবারের মেধাবী শিক্ষার্থীদের।
হাজার টাকা দিতে পারবেনা বলে____!
সেখানেও আছে রঙিন একটা ফেস্টুন___
ঠিক মেন গেটের উপরে।

কোট-কাচারিতে ধুলো পড়ে আছে___
গরিবের হ্যারাজমেন্টের ফাইল।
লাল-নীল নোটে পূজা করতে পারেনা সে-সকল দেবতাদের____
তাই গরিবের ফাইলে জমে থাকে ময়লার আবরণ।
তাদের মধ্যেও কেউ না কেউ হয়ে থাকে মৌসুমী মানবতার ফেস্টুন।

লাগানো শহরের দেওয়ালে বিশিষ্টদের___
রঙিন ফেস্টুন।
ফেস্টুনের ভরে ক্লান্ত হয়েছে আজ____
বিদ্যুতের পোলটিও।