অনুরাগ : ডাঃ গোলাম রহমান ব্রাইট

অনুরাগ
ডাঃ গোলাম রহমান ব্রাইট

অনুরাগের উষ্ণ আলিঙ্গনে বিক্ষত মোর বিগলিত চিত্ত
করেছি পণ কতবার; আল্পনায় এঁকেছি কল্পিত কত বৃত্ত।
কিঞ্চিৎ সরাতে পারিনি তারে ছায়া হয়ে কাছে সে আসে
সকাল দুপুর রাত অবধি কত স্বপ্ন মনে আচমকা যে ভাসে!
শত ব্যস্ততার ভীড়ে যতই পরিশ্রমে মত্ত ; মন মানে না বাঁধ
অদৃশ্য বোঝা কাঁধে; দুদণ্ড পারিনা ভুলতে সেকি মোর অপরাধ?

গুণ টেনে চলেছি স্রোতের প্রতিকূলে এক ভগ্ন তরী বেয়ে
ভাঙ্গা মাস্তুল নিয়ে জোড়াতালির জীবন; না খেয়ে না-দেয়ে!
অনুরাগে বিদ্ধ অনুক্ত তির বয়ে চলবো কতকাল কে জানে!
কল্পনার চাকায় পিষ্ট অযাচিত বিরহ ভরা বিষাক্ত বাণে,
সারাক্ষণ তাড়া করে ফেরে অনুরাগ এই অভিলাষী মনে
নৈঃশব্দের কান্নায় ভাসে কালো মেঘের স্পর্শ বিমূর্ত ক্ষনে।

বিমোহিত হই কল্পলোকে; ব্যথার ভারে নুয়ে পড়েছি ধুঁকে ধুঁকে
থমকে যাই; ভয়ানক রূপে আঘাত হানে নিশিথিনির বুকে।
সাহস সঞ্চার করে ক্রমান্বয়ে গুণ টেনে যাই দৃঢ় মনোবলে
কালের প্রবাহে বিদীর্ণ অনুরাগ পিষে যায় আবেগের পদতলে।
সাময়িক ক্রন্দনে কাতর; ব্যর্থতার ফাঁকে ফাঁকে উঁকি দেয় ভয়
বাস্তবতার অবাঞ্ছিত মেঘ প্রাচীর পেরুলেই নিশ্চিত জয়।

বিস্তীর্ণ পথের শেষে ক্লান্তিতে বসে তব অশ্রু মালা গাঁথি
গোপন অনুরাগে জপিত করুণ সুর মূর্ছনায় নিশি হলো সাথী।
বেদনার সৈকতে যেন বেলাভূমির ঢেউ আছড়ে পড়ে অন্তরে
সীমাহীন বিভীষিকায় দেখি অবারিত মন বিস্তীর্ণ মরু প্রান্তরে।
জ্বলে পুড়ে অঙ্গার ব্যথাহত এই মনের সব অভিমানী রাগ
মুখ থুবড়ে পড়ে থাকে মোর যত অভিলাষ আর যত অনুরাগ!

নাবিহা ফ্যাশন হাউস, গ্রাম- ফরিদপুর,
থানা- কালিগঞ্জ, জেলা- সাতক্ষীরা।