ছলোনাময়ী নারী : কাঞ্চন চক্রবর্তী

ছলোনাময়ী নারী
পর্ব (০৪)
কাঞ্চন চক্রবর্তী

ফোনে কথা বলছি আমাদের কি দেখা হওয়া দরকার নয় কি? আমি চাই আজই তোমার আর আমার দেখা হওয়া দরকার, বলো কোথায় দেখা করবো, বাবা বাড়িতে নেই ব্যবসার কাজে আমেরিকার গ্যাছে বাড়িতে শুধুমাত্র আমার মা এবং কাজের মেয়ে তুমি ইচ্ছে করলে আমাদের বাড়িতে আসতে পরো, সারা রাত জমিয়ে গল্প করে সময় কাটানো যাবে, নাগো আমি গ্রামের মানুষ কোনদিন ঢাকা শহরে যাইনি ওটা আমার দ্বারা সম্ভব হবেনা, তাতে কি হয়েছে তুমি পুরুষ মানুষ মেয়ে মানুষ তো নয় যে তোমার একটি রাত বাহিরে কাটালে তোমার জাত যাবে, যাত যেতে হলে মেয়ে দের যায় পুরুষের নয়,তবুও আমি যেতে পারবো না,তুমি কাপুরুষের মত কথা বলোনা তো,আচ্ছা ঠিক আছে তুমি একটা কাজ কর যশোর রেল রোডে আমাদের একটি বাড়ি আছে ই ব্লকে ৭৬ নং বাড়ি সেখানে কেয়ারটেকার আছে ওখানে কথা হবে আজ রাতে সেখানে দেখা হচ্ছে,তুমি আসবে তো? অবশ্যই আসবো, তাহলে এখন রাখছি। কথা শেষ না হতেই রূবি ফোনটা কেটে দিল, রমিজ কি করবে সে কিছুই বুঝতে পারছে না,যাবে নাকি যাবে না? অনেক কিছু মাথার মধ্যে ঘুরপাঁক খাচ্ছে সব যেন গুলিয়ে যাচ্ছে, ভাই ভাবিকে কি বলে বাড়ি থেকে বের হবে, কোথায় যাচ্ছি কার বাড়িতে কি হয় এমন হাজারও প্রশ্নের উত্তর সামনে এসে হাজির করবে, হটাৎ মাথার মধ্যে একটা কু-বুদ্ধি এসে হাজির হল,সে ভাবিকে ডেকে বললো ভাবি, আজ আমার বন্ধুর বিয়ে আমাকে নিমন্ত্রণ করেছে আমাকে বিকালে ওর বিয়েতে যেতে

চলবে–