যশোরে গৃহবধুর আত্মহত্যা প্ররোচনা, ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

ডাঃ সিরাজুল ইসলাম : যশোরে এক গৃহবধুকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেয়ার অভিযোগে ৪ জনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। গত ৩ আগস্ট মামলাটি দায়ের করেছেন গৃহবধূর ছোট চাচা নুরনবী। মামলার আসামীরা হচ্ছে- যশোর সদর উপজেলার ফতেপুর উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত আহম্মেদ সরদারের দুই ছেলে ইকবাল সরদার ও জাহাঙ্গীর সরদার, ফতেপুর দাইতলার মুরাদের স্ত্রী শাহিনুর ও যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার নোয়ালী গ্রামের রনির স্ত্রী রাজিয়া।
যশোরের মণিরামপুর উপজেলার রোহিতা গ্রামের মৃত মোসলেম মোড়লের ছেলে নুরনবী এ মামলার এজাহারে বলেছেন- আসামী ইকবাল সরদারের সাথে বড় ভাই প্রবাসী তোফাজ্জেল হোসেনের মেয়ে শারমিন সুলতানার (২৮) ১০ বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের পর শারমিন সুলতানা এক ছেলে ও এক মেয়ে সন্তানের জননী হয়। ২ বছর ধরে ইকবাল তার সহযোগী আসামীদের ইন্দনে তার স্ত্রী শারমিন সুলতানাকে নির্যাতন শুরু করে। ইকবাল পরকীয়ার কারণে নির্যাতনের এক পর্যায় সহযোগী আসামীরা শারমিন সুলতানাকে মরতে বলে এবং বিবাহ বিচ্ছেদের কথা বলে। গত ১ আগস্ট বিকেলে ইকবাল সরদার তার স্ত্রী শারমিন সুলতানাকে আত্মহত্যা করতে বলে বাড়ি হতে বের হয়। মারা না গেলে সে বাড়িতে ফিরবে না বলে জানায়। শারমিন সুলতানা তার মা রেশমাকে মোবাইল ফোনে মাধ্যমে জানায় ইকবাল ও সহযোগী আসামীরা তাকে মরতে বলেছে। সে আর বাঁচতে চায়না বলে ফোন কেটে দিয়ে বন্ধ করে দেয়। ওই দিন রাতে যে কোনো এক সময় শারমিন সুলতানা গলায় দঁড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে। এ মামলার আসামীরা এখনো পলাতক রয়েছে।