শালিখায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে এক অসহায় নারীর জমি দখলের চেষ্টা

শালিখা (মাগুরা) প্রতিনিধি: আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে অন্যের জমিতে ঘর নির্মাণে ব্যর্থ হয়ে বিভিন্ন মহলে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন শালিখা উপজেলার পিয়ারপুর গ্রামের ভূমিদস্যু হাফিজুর বিশ্বাস ও তার লাঠিয়াল বাহিনী। নিরুপায় হয়ে মাগুরা বিজ্ঞ আদালতে ১৪৪/ ১৪৫ ধারা মামলা করেও ভূমিদস্যুদের হুমকির মুখে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন জমির প্রকৃত মালিক জেসমিন আরা বেগম ও তার পরিবারের সদস্যরা। জমির মালিক জেসমিন আরা বেগমের স্বামী ইউনুস আলী বিশ্বাস কাছে ও মামলা সুত্রে জানা যায় ২য় পক্ষ শালিখা উপজেলা পিয়ারপুর গ্রামে হাফিজুর গং দাঙ্গাবাজ প্রকৃতির লোক। সে পরসম্পদ লোভী ও পরসম্পদ আত্মসাৎকারী এবং এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় গ্রামবাসীর তার কৃতকর্মের প্রতিবাদ করার সাহস পায়না। সে কারণেই জেসমিন আরা বেগম এলাকার মানুষের কাছে বিচার না পেয়ে গত ১২ জুন মাগুরার বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের শরণাপন্ন হন। অপরদিকে জেসমিন আরা বেগমের মা রিজিয়া বেগমের সম্পত্তি যা ওয়ারেশ সূত্রে সম্পত্তির মালিক এবং আরএস রেকর্ডীয় মালিকও তিনি। যার খতিয়ান নং ৩৮৫ দাগ নং ২২৫৮, ২৭৯২, ২২৪৭, ২২৫৫, ২২৫৬, ২২৫৭, ২৭৯২, ২৭৮৬, ২০০৫ ও ২১০৪ এর জমির পরিমাণ ৪২,৬৪,১৭,০৫,০৬,০৪,০৭,০৫,১৬ ও ০৫ শতক। সবমিলিয়ে উক্ত সম্পত্তি ১৭১ শতক। শুধু তাই নয় জেসমিন আরা বেগম উক্ত সম্পত্তি ভোগদখল পূর্বক নিজ বসত বাড়িসহ গাছপালা রোপণ করিয়াছি এবং ৪১ নং পিয়ারপুর মৌজার ২৭৯১ দাগের ৬৪ শতক জমির উপর দীর্ঘদিন স’মিল তৈরি করিয়া শান্তিপূর্ণ ভাবে দখল করে আসছেন। কিন্তু হাফিজুর বিশ্বাস লোভের বশবতী হইয়া উক্ত জমি দখলের পায়তারা শুরু করেন। জেসমিন আরা বেগমের সম্পত্তি দখল করার জন্য একটি ভুয়া দলিল বানাইয়া সম্পত্তির মালিক দাবি করে আদালতে মামলা দায়ের করেন। শুধু তাই নয় আদালতের ১৪৪ ধারা বলবৎ থাকা সত্ত্বেও গত ২৬ জুন শুক্রবার সকালে হাফিজুর ও তার লাঠিয়াল বাহিনী উক্ত জমি দখল করার জন্য লাঠিসোটা নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে এবং ইট-বালু নিয়ে জোরপূর্বক ঘর করার চেষ্টা করেও পুলিশ বাধায় ব্যর্থ হয়। পরবর্তীতে পুলিশের হস্তক্ষেপে উক্ত জমি থেকে ইট বালু অপসারণ করতে বাধ্য হয় হাফিজুর ও তার লোকজন। শুধু এতেও ক্ষান্ত হয়নি হাফিজুর বিশ্বাস ও তার লোকজন জেসমিন আরা বেগম ও তার স্বামী ইউনুস আলী বিশ্বাসকে জমি দখলে বাধা দিলে জীবননাশের হুমকি প্রদান করেন। ফলে জেসমিন আরা বেগম ও তার পরিবারের সদস্যরা আতঙ্কে মাঝে দিনাতিপাত করছেন। এমনতো অবস্থায় জেসমিন আরা বেগম ও তার পরিবারের সদস্যরা প্রশাসনের আশু দৃষ্টি কামনা করছেন। এ ব্যাপারে হাফিজুর বিশ্বাসের সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি বলেন অনেক কথা তো! আপনার সাথে দেখা করে বলবো।