শালিখায় ফল বাজারে ক্রেতাশূন্য চিন্তায় ব্যবসায়ীরা

নাজমুল হক, শালিখা থেকে: শালিখা উপজেলার আড়পাড়া, সীমাখালী, সিংড়া, বুনাগাতী বাজারের বিভিন্ন ফলের দোকানে পর্যাপ্ত ফল মজুদ আছে। মহামারী করনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এর কারণে তুলনামূলক ভাবে বিক্রি হচ্ছে কম। অন্যান্য বছরের তুলনায় ফল বিক্রি অর্ধেকে নেমে এসেছে। এ নিয়ে চিন্তিত উপজেলার এসকল ফল ব্যবসায়ীরা উপজেলার আড়পাড়া ও সীমাখালী ঘুরে দেখা যায় বাজারে আম, কাঁঠাল, লিচু, নাশপাতি, কলা, আনারসের ভরপুর বাজার। ফল বাজারের দোকান গুলোতে পাকা ফলের মম গন্ধ ছড়িয়ে আছে। তবে আকৃষ্ট হচ্ছে না ক্রেতারা। জানা যায় বর্তমানে বাজারে অনেক রাজশাহীর আম আসছে। বর্তমানে আম্রপালি ৬০ টাকা, হাড়িভাঙ্গা ৭৫ টাকা,ল্যাংড়া ৭০থেকে ৭৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।আর কিছুদিন পরে বাজারে আসবে ফজলি আম। এখন মালটা ২৪০ টাকা,আপেল ১৪০টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। সীমাখালী বাজারের ফল (কাঁঠাল) ব্যবসায়ী শিমুল তরফদার, জয়নাল গাজী, সামাদ বিশ্বাস সহ অনেকে জানান, অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর কাঁঠাল কিছুটা ভালো দামে বিক্রি হচ্ছে। আড়পাড়া বাজারের ফল ব্যবসায়ী আলামিন হোসেন, আশিকুর রহমান জানান, আমরা এখনো টার্গেট অনুযায়ী ফল বিক্রি করতে পারেনি। অন্য বছর প্রতিজন ফল ব্যবসায়ী প্রতিদিন গড়ে ১০ থেকে ১৫হাজার টাকার ফল বিক্রি করতাম। এবছর করোনার কারণে বেচাকেনা অর্ধেকে নেমে এসেছে। অন্য বছরের তুলনায় এবছর ফলের উৎপাদন ভাল হয়েছে। বাজারে ফল ও এসেছে অনেক। প্রত্যেক ব্যবসায়ীর কাছে পর্যাপ্ত ফল আছে। তবে ফল ব্যবসায়ীরা এবছর কাঙ্খিত পরিমাণ ফল বিক্রি করতে পারছে না।