মোংলায় ৩৬ দফা দাবীতে বিক্ষোভ করেছে বন্দরের কর্মচারীরা

মোংলা প্রতিনিধি : বন্দর কতৃপক্ষের কর্মচারীদের ৩৬ দাবী আদায়ের লক্ষে বিক্ষোভ, আলোচনা সভা ও সমাবেশ করেছে বন্দর কর্মচারীরা। এছাড়াও নতুন যোগদান করা মোংলা বন্দর চেয়ারম্যানের সেচ্ছাচারিতার প্রতিবাদে বিভিন্ন কর্মসুচি হাতে নিয়েছে সিবিএ’র নেতৃবৃন্দ। রোববার দুপুরে বন্দর কতর্ৃপক্ষ কর্মচারী সংঘ চত্তরে এ বিক্ষোভ কর্মসুচি পালন করে বন্দরের কর্মচারী ও সিবিএ’র নেতৃবৃন্দ।
এ সময় বন্দরের কর্মচারীরা জানায়, নতুন যোগদান করা বন্দর চেয়ারম্যান, বন্দরের কর্মকর্তা ও সিবিএ নেতৃবৃন্দ সহ কাউকেই তোয়াক্কা করছেনা। তিনি এ বন্দরে আসার পর থেকে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিভিন্ন কারনে-অকারনে হয়রানী করে আসছে। বন্দরের নিয়োমানুযায়ী উন্নয়ন মুলক কার্যক্রম সিবিএ নেতৃবৃন্দসহ কর্মকর্তা কর্মচারীদের সমন্নয় সম্মিলিত কাজ করার নিয়োম থাকলেও তিনি তার ইচ্ছামাফিক কার্যক্রম চালাচ্ছে। কাউকে কিছু না বলে এমনকি সে বন্দরের দাপ্তরিক কাজ তার নিজের ইচ্ছামতই করছেন এ চেয়ারম্যান। এতে বন্দরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। বন্দর চেয়ারম্যান তার ইচ্ছামাফিক কার্যক্রম ও বন্দর পরিচালনা করলে এবং কর্মচারীদের ৩৬ দফা দাবী দ্রুত মেনে না নিলে আরো কঠোর কর্মসুচির হুশিয়ারী দেন বন্দরের কর্মচারীসহ সিবিএ নেতৃবৃন্দ। বিক্ষোভ কর্মসূচীতে সিবিএর সভাপতি সাইজউদ্দিন মিয়া বলেন, বন্দর চেয়ারম্যান যোগদান হওয়ার পর থেকে সচল বন্দরকে আবারও অচল করার পায়তারা করছে। বন্দর সংশ্লিষ্ট কোন উন্নয়ন মুলক কাজের চিঠি চালাচালীতে বন্দর সংশ্লিষ্ট সিটি মেয়র, উপমন্ত্রীসহ অন্যান্য উর্ধতন কতর্ৃপক্ষকে অবহিত করলে তিনি তা না করার জন্য নিশেধ করেন। এতেই বোঝা যাচ্ছে, এ চেয়ারম্যান বন্দরের উন্নয়নে বাধা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তিনি পুর্বের অন্য সকল চেয়ারম্যানের দায়ীত্বকালে কর্মকান্ডগুলো অগ্রয্য করে পুনবিবেচনার আয়োতায় আনার ষড়যন্ত্র করছে। তাতে বন্দর নয় দেশের সুনাম নষ্ট হওয়ার সামিল বলে দাবি করেন সিবিএর নেতৃবৃন্দ। এসময় সাধারন সম্পাদক মোঃ ফিরোজ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান শাকিবসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ এবং কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। এ বিষয়ে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম শাহাজাহান বলেন, বন্দরের কর্মচারী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের ৩৬ দফা দাবীর বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যে কমিটি করে দেয়া হয়েছে। সেই কমিটি তাদের প্রতিবেদনের উপরই তাদের দাবীর বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয়া হবে।