শালিখায় ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে ঘর নির্মাণের চেষ্টা ব্যর্থ করে দিলেন শালিখা থানা পুলিশ

শালিখা মাগুরা প্রতিনিধি : শালিখায় আদালতের দেওয়া ১৪৪/১৪৫ ধারা উপেক্ষা করে ঘর নির্মাণের চেষ্টা ব্যর্থ করে দিলেন শালিখা থানা পুলিশ। জানা যায় শুক্রবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে় শালিখা উপজেলা পিয়ারপুর গ্রামের ইউনুছ আলী বিশ্বাসের স্ত্রী জেসমিন আরা বেগমের জমিতে ঘর নির্মাণের জন্য একই গ্রামের মোঃ হাফিজুর বিশ্বাস পিতা মৃত গোলবার বিশ্বাস ইট বালি এনে গাড়ি থেকে নামাতে শুরু করে। এ সংবাদ শোনার পর জমির মালিকের স্বামী ইউনুস আলী বিশ্বাস শালিখা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ তরিকুল ইসলামকে ঘটনাটি জানান। ঘটনা জানার পরপরই ওসি ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে সবকিছু বন্ধ করে দেয়। ইউনুস আলী বিশ্বাসের সাথে কথা বললে তিনি বলেন স্বাধীনতার পর থেকে জমি ভোগদখল করছি আমি। এ জমির আর কোন শরীক নাই। শালিখা উপজেলা থানাধীন ৪১ নং পিয়ারপুর মৌজার জমি আর এস ২২৫৮ দাগে ৪২ শতক জমি ও ২৭৯১ দাগে ৬৪ শতক জমি যার আরএস খতিয়ান নম্বর ৩৮৫। মোঃ হাফিজুর রহমান বিশ্বাস এই জমি তার বলে আমাকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করছে। আমি কোন কুলকিনারা না পেয়ে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাগুরা আদালতে হাজির একটি মামলা করি। মামলা নং শালিখা পিঃ-১৬০/২০২০ ধারা ফৌজদারী কার্যবিধি আইন ১৪৪/১৪৫ ধারা। মামলার নথিতে লেখা আছে আপনারা উভয়পক্ষ বিজ্ঞ আদালতে পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত নালিশি জমিতে গাছপালা কাটা সহ অন্যান্য কার্যদী হতে বিরত থাকবে। তারা আদালতের এ আইন অমান্য করে জমি দখলের চেষ্টা করছে আমি এর দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি দাবি করছি। এ ব্যাপারে মোঃ হাফিজুর বিশ্বাসের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি বলেন আমি এখন ইট বালি এনে রেখে দিব আমার যখন সময় হবে আমি তখন ঘর করব। আমার ওখানে আরো জমি আছে। এব্যাপারে শালিখা থানার ওসি মোঃ তরিকুল ইসলাম বলেন আমি ঘটনাটি জানার পরপরই এসআই মোঃ মনজুর মোর্শেদকে ঘটনাস্থলে পাঠাই এবং ওই জমি থেকে সবকিছু অপসারণ করা সহ সকল ধরনের কাজ বন্ধ করা হয়।