যশোর কচুয়ায় গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

আজগার আলী : যশোর সদর উপজেলার কচুয়া নন্দীপাড়া গ্রামের বিল্লাল হোসেনের স্ত্রী রিনি বেগম (২২) রবিবার সকাল ১১ টার দিকে নিজ ঘরে দরজা বন্ধ করে সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। রিনি বেগম যশোর অভয়নগর উপজেলার চেঙ্গুটিয়া গ্রামের তরিকুল ইসলামের মেয়ে। ২০১৭ সালে কচুয়া গ্রামের ইমাম আলী গোলদারের ছেলে মোঃ বিল্লাল হোসেনের(৩০) সঙ্গে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই সংসারে পারিবারিক কলহ চলছিল বলে অভিযোগ করেন পিতা তরিকুল ইসলাম। তিনি জানান, মেয়ের শাশুড়ী, শশুর, ভাসুর ও ননদ প্রতিনিয়ত আমার মেয়ের সাথে ঝগড়া বিবাদ করতো। আমার মেয়ে ওখানে সংসার করতে চাইতো না। আমরা কয়েকবার এ নিয়ে মেয়ের বাড়িতে দেন দরবার করেছি এবং মেয়েকে বুঝিয়ে শুজিয়ে রেখে এসেছি। তিনি আরো বলেন, তার মেয়ে কয়েকবার তাকে বলেছে তার স্বামীর পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা তাকে মেরে ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রাখবে এতে যত টাকা লাগে লাগুক বলে হুমকি দিয়েছে। কিন্তু আমরা তার কোনো কথায় গুরুত্ব দেয়নি কারন তার সংসার ও তার ছোট মেয়েটির কথা চিন্তা করে তাকে বুঝিয়ে সুজিয়ে রাখার চেষ্টা করেছি। কিন্তু অবশেষে সেই কথাটিই সত্য হল বলে কাদতে থাকেন পিতা তরিকুল ইসলাম। অপর দিকে মেয়েটির স্বামী বলে অন্য কথা, সে বলে তার স্ত্রী রিনি তাকে পছন্দ করতো না। কারন তার পূর্বে অন্য কারো সাথে প্রেমজ সম্পর্ক রয়েছে। সে তাকে ভুলতে পারিনি এবং এটা নিয়ে মাঝেমধ্যেই ঝগড়া হত আমাদের মধ্যে। সে কারনেই সে আত্মহত্যা করেছে। কিন্তু পাড়া-প্রতিবেশীদের মাঝে গুঞ্জন এটা কি আত্মহত্যা নাকি পরিকল্পিত হত্যা? আত্মহত্যাকারী রিনির ২ বছরের একটি শিশু কন্যা সন্তান রয়েছে। এই সংবাদ পেয়ে নরেন্দ্রপুর পুলিশ ক্যাম্পের এস আই গোলাম মোর্তোজা রিনির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করেন। এই সংবাদ লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতির কাজ চলছে বলে জানা যায়।