সময়ের সম্ভাষণ : মানবেন্দ্র কুমার সাহা

সময়ের সম্ভাষণ
মানবেন্দ্র কুমার সাহা

মনে জমা প্রবল মেঘ, জলের ফুলকি সবেগ
সবই চাপা ভুল ছিল,যা সকল আবেগ,
ফুরিয়ে এলো আর্তনাদের গতি যত ভুমিকম্প।
কম্পন কর্ন কুহরে,মতিমোর ভীমরতি দূর হোক।
গতি হোক সঞ্চার,স্পর্ধা বিশ্ব জয়ের
মিথ্যা বিদায় অহংকার থাকবেনা লেশমাত্র নেশা হোক,
প্রকৃতি দিয়ে যায় ধংস্ব করে নিজের সবই।

পর্বত উচু নয়,গভীর নয় নীল নদ,
মানবতা উচু কত,মনের গভীরে পাবে সেই পথ।
যেখানে ফোটে ফুল সেখানে শোভা নেই
বুক চিরে দেখ ক’ফোটা রক্ত যেখানে
শুধু মৃত্যুর কল্পনা,শোভা সেখানেই।

একেছো বেঁচে থাকার দূর্লভতা করে বিজন লাভ ইতিহাসে বেঁচে দেহ হোক পোকার খাবার।
যেখানে কোটি প্রানের সঞ্চার পৃথিবীর মানুষের কত উপকারে।

ধংস হোক মিথ্যার গাথা মসনদ
সত্যে রও ধংস করে অলস জ্ঞান সম্পদ
মায়ায় কী লাভ, যদি মায়া না পোড়ালে
কষ্ট কি বুঝলেনা সুখ না হারালে
দুঃখ পুড়ে হয় স্বর্গ,সেখানে সুখ চির সময়ের।

আঁকালে কত চোখের কাজল রেখা,
সময় হারালে,দেহের সরল পুতুল আঁকা।
তুমি আজ পুতুল রাজ,নিজেই পুতুল মূর্তি সাবাই লুটে মজা তোমায় দেখে কতক করে ফুর্তি।

সময় সকলের ফুটিয়ে তোলে একই চিত্র
শুধু মানুষ মানুষের কথা ভুলে নিজের সুখের দোলায় দুলে।
কি ফল চাই শুধু মুক্তি, যখন সময়ের কাঠগড়ায়।
আসামী নিজেই পরাজিত জীবনে,
সময়ের সম্ভাষণ।