আইসোলেশন ভঙ্গ করায় ওসি প্রত্যাহার

ডেস্ক : করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর আইসোলেশন ভঙ্গ করে আসামিকে নিয়ে অস্ত্র উদ্ধারে যাওয়ায় নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুস সামাদকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে তার জায়গায় গিয়াস উদ্দিন নামে নতুন ওসি দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে মাদ্রাসাছাত্র আবুল বাশার সাইমন (১৩) হত্যা মামলার প্রধান আসামি মীর হোসেন প্রকাশ মীরাকে (২০) ঢাকার কদমতলী থানার মোহাম্মদবাগ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ। গত বুধবার গ্রেপ্তার আসামিকে থানায় আনার পর ওসি আবদুস সামাদ আইসোলেশন থেকে বের হয়ে ওই আসামিকে নিয়ে ঘটনাস্থলে অস্ত্র উদ্ধারে যান। এ সময় ওসিসহ অন্য পুলিশ সদস্যদের উপস্থিতিতে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি ছোরা উদ্ধার করা হয়।

অভিযানের সময় আসামি ছাড়াও একাধিক পুলিশ সদস্য ওসির সংস্পর্শে আসেন। পরে করোনা আক্রান্ত ওসির সঙ্গে আসামি ও অন্য পুলিশ সদস্যদের যৌথ একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ পায়। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়রা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এ বিষয়ে নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, ‘ওসি আবদুস সামাদ করোনায় আক্রান্ত হয়েও আইসোলেশনে না থেকে আসামি নিয়ে অভিযানে গিয়ে অন্যায় করেছেন এবং অন্যদের ঝুঁকির মধ্যে ফেলেছেন। তাকে আইসোলেশেন পাঠানো হয়েছে। একই সাথে তাকে প্রত্যাহার করে তার স্থলে নতুন ওসি হিসেবে গিয়াস উদ্দিনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, জ্বর, সর্দি, কাশিতে আক্রান্ত হয়ে গত ৯ জুন সোনাইমুড়ী বজরা হাসপাতালে গিয়ে নমুনা দিয়ে আসেন ওসি সামাদ। ১৫ জুন তার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর থানা কোয়ার্টারেই আইসোলেশনে ছিলেন তিনি।

পিএনএস