শালিখা আইডিয়াল টেকনিক্যাল ও বি.এম কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মলন

নাজমুল হক ,শালিখা প্রতিনিধি : শালিখা আইডিয়াল টেকনিক্যাল ও বি.এম কলেজের অধ্যক্ষ প্রদীপ কুমার বিশ্বাসের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মাধ্যমে ভুয়া নিয়োগ দেখিয়ে এমপিও ভুক্তির আবেদন গ্রহণের অভিযোগ করেছে অত্র কলেজের বাংলা বিষয়ের প্রভাষক সুকান্ত মজুমদার।

এ অভিযোগের ভিত্তিতে শালিখার বুনাগাতী ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ বখতিয়ার উদ্দিন লস্কর সোমবার বেলা ১১ টায় সংবাদ সম্মলন করেন। এসময় তিনি লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন এবং সাংবাদিকদের বলেন আমার জানামতে ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় সুকান্ত মজুমদার ১৫ বৎসর যাবৎ অত্র প্রতিষ্ঠানে একমাত্র বাংলা প্রভাষক পদে পাঠদান করেছে। তিনি এক বছর ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেছে।

কিন্তু সম্প্রতি সুকান্ত মজুমদারে অভিযোগের ভিত্তিতে জানা যায়, অধ্যক্ষ এমপিও ভুক্তির আবেদন না করে ভুয়া নিয়োগ দেখিয়ে অর্থ বাণিজ্যের মাধ্যমে বর্ণালী শিকদার নামে একজনের আবেদন এমপিও ভুক্তির জন্য প্রেরণ করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৩/ ৬/২০ ইংরেজি তারিখে অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে অধ্যক্ষের দুর্নীতির বিরুদ্ধে ও সুকান্ত মজুমদার এমপিও ভুক্তির দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে। অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠলে বিভিন্ন সময় সম্মানিত সাংবাদিকবৃন্দ আমার বক্তব্য চাই। আমি সাংবাদিকদের বলি সুকান্ত মজুমদার ১৫ বছর যাবত অত্র প্রতিষ্ঠানে বাংলা প্রভাষক পদে পাঠদান করছে এবং সুকান্ত মজুমদারের প্রেরিত অভিযোগের সত্যতা প্রমাণ পেলে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবী জানাই।

এরই জের ধরে অধ্যক্ষ মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী, অভিভাবক, এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে নিজে এবং কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তি দিয়ে অব্যাহত ভাবে হুমকি প্রদান করে যাচ্ছে। সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত আমার বক্তব্য তার বিরুদ্ধে যাওয়াই গতকাল বিকালে বুনাগাতি বাজারে আমার বিরুদ্ধে মানহানিকর বক্তব্য উপস্থাপন করে। এছাড়াও আমার নাম উল্লেখ করে এবং সুকান্ত মজুমদারকে সন্ত্রাসী আখ্যায়িত করে ব্যানার টানায়। অধ্যক্ষের এই অপপ্রচার ও সুকান্ত মজুমদার অভিযোগের সত্যতা যাচাই করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।