শ্যামলা মুখ : কে এম মেহেদী হাসান

শ্যামলা মুখ
কে এম মেহেদী হাসান

ভুলেছি আমি সেই রঙিন আমাকে,
ভুলেছি মধুমাখা সৃতির অনেক বিকেল।
শুধু ভুলতে পারিনি আজও _
কোনো-এক শ্যামলা মায়াবী ভরা মুখ_____।

চেনা শহরের চেনা গলি গুলো _
আজ!…. ইচ্ছেতেই অচেনা করে রেখেছি আমি।
ভুলেছি আমি সেই রঙিন আমাকে,
ভালো লাগেনা কিছুই।

সেদিন হঠাৎ দেখেছিলাম তোমাকে
আমন ক্ষেতের পুবালি বাতাস____
লেগেছে তোমার চরণে ছুঁয়া গহীন কালো চুলে____
সাদা আঁচল সে-যেন মাতাল হয়ে নেচে নেচে ইশারা করছে আমায়।____
এমন সব অকৃত্রিম মনোভাবে কাটে আমার প্রতিটি অন্ধকারের একেলা!

আলমারি!বাসন-কোসন সখের দেওয়াল ঘড়িতে____ আজও তোমার নরম কমল ছোঁয়া লেগে আছে____
লেগে আছে তোমার ছোঁয়া আমার দেহতে____ প্রতিটি কালো কালো লোমকূপের গোড়ায়।
ভুলেছি আমি সেই রঙিন আমাকে,
ভুলেছি মধুমাখা সৃতির অনেকগুলি বিকেল।

আরো দেখেছি সেই শ্যামলা মায়াবী ভরা মুখ __
আমফুলের জলে ডুবা ডালে বসে,
কৃষকের নাগিন মাতানো বাঁশির করুণ সুরে_____
তোমার মিঠা কন্ঠে ছন্দে ছন্দে অতিথি মেঘের সাথে কথা বলতে!

এক খন্ড মেঘ দাড়িয়ে______
আওয়াজে গুড়ুম শব্দে কি-যেন বলে গেলো।
চলে যেতে যেতে খানিকটা জল ছিটিয়ে ভিজিয়ে দিল সেই শ্যামলা মাইয়া ভরা মুখের প্রতিটি অঙ্গে অঙ্গে।

মনে হলো সেই শ্যামলা মায়াবী মুখের দু’নয়ন আমাকে দেখছে ____,…..
পরম আবেশে !…..
ভিজে শ্যামলা শরীর ….
গাড় সোনার মতো চকচক করছে।
লজ্জাবতী’র রূপে দুমড়ে মুচড়ে নিথর হয়ে_____
আমফুলের ডালে____ জলে পা ডুবিয়ে বসে আছে।

আমিও নজর ফিরিয়ে নিলাম তার থেকে ……
আমি আকাশ-পানে …..
শ্রাবনের হাওয়ায় খুঁজতে থাকলাম সেই এক খন্ড মেঘকে ! ……
হঠাৎ বিকট একটা শব্দে ঘাড় ফিরিয়ে দেখি ….. ব্যালকনিতে বসে থাকা আমি!….. আরাম-কেদারায় .

কিছু বুঝে আসার আগেই ___মন বলে উঠলো এটা স্বপ্ন শুধুই স্বপ্ন।
সে থেকেই ভুলেছি সেই রঙিন আমাকে,
ভুলেছি মধুমাখা সৃতির অনেক বিকেল।

মাগুরা সদর উপজেলা
হাজরাপুর ইউনিয়ন