আমার মাঝি : সংহিতা মজুমদার

আমার মাঝি
সংহিতা মজুমদার

এতটা প্রান্তর হেঁটে যখন নদী তটে যাই
তখনো আমার মাঝি আসে নাই,
অপেক্ষায় মোর নয়ন বারে বারে
নদী বক্ষে খুঁজিতে লাগিল তারে
ঐ যে আমার মাঝি এল বুঝি
বার বার যারে আমি সর্বত্র খুঁজি
তার ছোটো ডিঙি নৌকা ঘাটে যখন ভিড়লো
সন্ধ্যে তখন ধীরে ধীরে দিনের আলো কাড়লো,,
আমি ধীরে ধীরে নৌকার কাছে গিয়ে
হাতটা বাড়ালাম,
সে সন্তর্পনে আমার হাতটা ধরে
তুলে নিলো নৌকায়,,
বললো আজ আমরা যাবো কোথায়?
আমি তার নয়নে নিজের নয়ন রেখে
ধীরে বললাম চলো না যেদিকে
দু চোখ যায়,,
সে আমায় বললো ছেলেমানুষি কোরো না
নদীতে আজ বড়ো স্রোত
ফিরতে হবে তড়িঘড়ি
রেগে গিয়ে বললাম আমি
তার সাথে থাকবো বলে
এসেছি যে পড়িমরি,,
তারপর খানিক শান্ত হয়ে
আবার আমি বললাম
চলো না যে দিকে স্রোত নিয়ে যাবে নৌকাকে
সেদিকেই যাবো না হয় দুজনে একসাথে
সে হেসে কয় পাগল তুমি একদম বন্য,
বললাম পাগল-ই সই টাও তো তোমার জন্য
বললো মাঝি জানতাম আজি
ছাড়বি না আর তুই
রাখ তবে মাথা আমার বুকে
আমার চাঁপা ভূঁই ||

সংহিতা মজুমদার
মধ্যগ্রাম, শারদা সরণী, কোলকাতা-১২৯