করোনা প্রতিরোধে দায়িত্বপালনকালে মণিরামপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িতে হামলা

মণিরামপুর , সংবাদদাতা :
যশোরের মণিরামপুরে করোনা প্রতিরোধে দায়িত্বপালনকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুফল চন্দ্র গোলদার প্রতিরোধের মুখে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার চালকিডাঙ্গা বজারে এঘটনা ঘটে। এসময় বিল্লাল হোসেন নামে এক আনসার-ভিডিপি সদস্য আহত হয়েছেন। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে মণিরামপুর হাসপাতালে ভর্তি করেন।
এদিকে খবর পেয়ে থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে যান ইউএনও আহসান উল্লাহ শরিফী। ততক্ষণে দোকানপাট বন্ধ হয়ে বাজার ফাঁকা হয়ে যায়।
অভিযানে থাকা ফায়ারম্যান আব্দুস সালাম বলেন, রাত ৮টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুফল চন্দ্র গোলদার স্যারসহ আমরা চালকিডাঙ্গা বাজারে যাই। যেয়ে দেখি দোকানপাট খোলা: বাজারে লোকজন রয়েছে অনেক। কেউ সরকারি নির্দেশনা মানছে না। এসময় গাড়িতে থাকা আনসার-ভিডিপি সদস্যরা নেমে লোকজনকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। লোকজন সরে গিয়ে পরে আবার সংঘবদ্ধ হয়ে আমাদের গাড়িতে হামলা চালায়।
আব্দুস সালাম বলেন, ম্যাজিস্ট্রেট স্যারসহ আমরা কোনরকমে সরে আসি। ওইসময় হামলাকারীরা আনসার-ভিডিপি সদস্য বিল্লালকে ধাওয়া দিয়ে পাশের বিলে নিয়ে মারপিট করে। পরে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি গিয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে আনেন।
মণিরামপুর থানার এসআই খান আব্দুর রহমান বলেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িতে হামলা হয়েছে শুনে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। পরে শুনি ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িতে না এক আনসার-ভিডিপি সদস্যকে তাড়া করেছে লোকজন। আমরা যেয়ে দেখি বাজার ফাঁকা; দোকানপাট বন্ধ।
মণিরামপুর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. দিবাকর ম-ল বলেন, আনসার সদস্যর আঘাত গুরুত্বর না। তিনি সুস্থ আছেন।
জানতে চাইলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুফল চন্দ্র গোলদার বলেন, এই বিষয়ে আমার কোন বক্তব্য নাই। আপনারা ইউএনও স্যারের সাথে কথা বলেন। একপর্যায়ে তিনি বলেন, লোকজন গাড়ির দিকে এগিয়ে আসছিল। তখন আমরা গাড়ি টান দিয়ে চলে আসি।
এই বিষয়ে জানতে মণিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান উল্লাহ শরিফীর সরকারি মোবাইলে একাধিকবার কল করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। ফলে তার বক্তব্য জানা যায়নি।