যশোরে আলোচিত নারী মাদক ব্যবসায়ী লিপি খাতুন ২৬ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক

যশোর অফিস : মাদক সম্রাজ্ঞী খ্যাত লিপি খাতুন যশোর জেলার পরিচিত মুখ। তার লাইফ স্টাইল দেখে অনেকে হতবাকও হয়েছেন। অধিকাংশ সময় তাকে নিউ মডেলের মোটরবাইক চালাতে দেখা যায়। কখনো জিন্স প্যান্ট ও সর্ট গেঞ্জি পরে, কখনো পাজামা পাঞ্জাবি পরে মোটরবাইক চালায় লিপি। কখনো নিজেকে গণমাধ্যম কর্মী হিসাবে পরিচয় দিয়ে থাকেন। পরিচয়পত্র ঝুলিয়ে বিভিন্ন স্থানে তার বেপরোয়া চলাফেরা লক্ষনীয়।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানা পুলিশ মঙ্গলবার বিকাল ৪ টায় পৌর সদরের তরিকুল ইসলামের বাড়ী থেকে তাকে গ্রেফতার করে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বাড়ীর মালিকসহ আরো ৩ জন মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এ বিষয়ে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গোপন সংবাদের মাধ্যমে পুলিশের কাছে খবর আসে মাদক সম্রাজ্ঞী লিপি খাতুন ও কয়েকজন সহযোগি পৌর সদরের তরিকুল ইসলামের বাড়ীতে অবস্থান নিয়ে মাদকের কারবার চালাচ্ছে। খবর পাওয়ার পর থানার অফিসার ইনচার্জ রিফাত খান রাজীবের নেতৃত্বে এস আই গিয়াস উদ্দীন, এস আই বজলুর রহমানসহ সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে হাজির হয়।

এ সময় তরিকুলের বাড়ী থেকে ২৬ বোতল ফেনসিডিল ও তরল ফেসনিডিলসহ লিপি খাতুনকে আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ। আটক লিপি উপজেলার মাশিলা গ্রামের হানেফ আলীর মেয়ে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বাড়ীর মালিক নজরুল ইসরামের ছেলে তরিকুল ইসলাম, ঝিনাইকুন্ড গ্রামের টিটো, চৌগাছা বিশ্বাস পাড়ার হিরা ও জুম্মন নামের এক মাদক ব্যবসায়ী পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে।

লিপি খাতুনের আটকের বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ রিফাত খান রাজীবের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, আটক লিপি খাতুন মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে যশোর সদসসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা আছে। এ বিষয়ে পলাতকসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা হয়েছে। এছাড়া যারা পলাতক তাদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।