করোনা মোকাবেলাতেও সরকার সব সিদ্ধান্ত এককভাবে নিচ্ছে: ফখরুল

fakrul

বৈশ্বিক দুর্যোগ করোনা ভাইরাস মোকাবিলাতেও সরকার সব সিদ্ধান্ত এককভাবে নিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

দেশের চলমান করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব এবং লকাডউন পরিস্থিতি নিয়ে মোবাইলে সাথে আলাপকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

কবে নাগাদ দেশের লকডাউন তোলা উচিত এ প্রসঙ্গে ফখরুল বলেন, ‘এখনই এই মুহূর্তে আমার পক্ষে বলা সম্ভব না কারণ, লকডাউনটা কেন করা হয়েছে সেটা আমাদেরকে বুঝতে হবে। লকডাউনটা করা হয়েছে কারণ অন্য কোনো ট্রিটমেন্ট নেই। যেহেতু এটার কোনও চিকিৎসা বের হয়নি। এখন পর্যন্ত এর কোনো ভ্যাকসিন বের হয়নি। দেখা যাচ্ছে এটা একটা অত্যন্ত ভয়াবহ রকমের ছোঁয়াচে অসুখ। যেটা মুহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে সারা পৃথিবীব্যাপী।’

তিনি বলেন, ‘এ অবস্থায় ফিজিক্যাল ডিসটেন্স থাকে তাহলে কিছুটা রক্ষা পাওয়া যেতে পারে, যে কারণে গোটা পৃথিবীতে আজকে লকডাউন এসেছে। এখন কোন সময়ে এটা তোলা যেতে পারে অথবা কোন সময় এটা তোলা যেতে পারে না- যারা বিশেষজ্ঞ আছেন তারা বলবেন। অন্যদিকে ইকোনোমির যে অবস্থা সে দিকেও খেয়াল রাখতে হবে। সব মিলিয়েই সিদ্ধান্তটা নিতে হবে। সুতরাং মুহূর্তের মধ্যে এটা বলে ফেলা, বাংলাদেশে তো এটা শুরুই হয়নি। বাংলাদেশে এখন শুরু হচ্ছে। বিষয়টি কর্তৃপক্ষ আরও চিন্তা করবে পরিস্থিতি বুঝে কিন্তু মানুষের জীবন তো সবার আগে তাই না?’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘সবার আগে মানুষের জীবন, সেটাকে রক্ষা করবার জন্য সরকারকে দায়-দায়িত্ব নিতে হবে। যে কারণে আমরা জাতীয় ঐক্যের কথা বলেছি। জাতীয় টাস্কফোর্স গঠনের কথা বলেছি। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেটা তো হচ্ছে না। এককভাবে সব সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। সিদ্ধান্তটা যতক্ষণ পর্যন্ত জনগণের পক্ষে থাকবে ঠিক আছে।’

এবিষয়ে দলটির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘করোণা ভাইরাস এটা মহাদুর্যোগ। এই দুর্যোগে সরকার বা কোনো রাজনৈতিক দল একা মোকাবিলা করতে পারবে না। নিম্ন আয়ের মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে, খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে। তাদের অর্থনীতির দুরাবস্থা এগুলো নিয়ে পরিকল্পনা করতে হবে। সর্বদলীয় কমিটির করার কথা যেটা বলা হচ্ছে- সেটা করা দরকার। আমাদের পাশের দেশের প্রধানমন্ত্রী কোনো সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে সব দলের সঙ্গে আলোচনা করছেন।’

ত্রাণ সমন্বয়ের জন্য ৬৪ জেলায় সবিচদের দায়িত্ব দেয়া জনপ্রতিনিধিদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর অনাস্থার প্রকাশ কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে দুদু বলেন, ‘এটা একটা বিকল্প। আমরাও বিকল্পের কথা বলেছি। তা না হলে কেউ ত্রাণ পাবে, কেউ পাবে না। কিন্তু সর্বদলীয় হলে দলমত নির্বিশেষে সবার জন্য সুবিধা হবে।’

পিএনএস