চৌগাছার মাসিক সভায় নানা অনিয়মের অভিযোগ

প্রণোদনা দেওয়া হয় দালালদের মাধ্যমে,মাসিক সভায় বললেন ইউপি চেয়ারম্যান

টাইমভিশন২৪,যশোর অফিস:যশোরের চৌগাছার মাসিক সভায় নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠে এসেছে। প্রায়ই মাসিক সভাকে কেন্দ্র করে নানা অভিযোগ করেন উপস্থিত ব্যাক্তিবর্গ। সভার চিঠি পৌঁছে দিলেও উপস্থিত থাকেন না একাধিক কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধি।

উপজেলা কর্মকর্তাগণ নির্বাহী কর্মকর্তা ছাড়া তোয়ক্কা করেন না উপজেলা চেয়ারম্যানকে, নির্বাহী কর্মকর্তা অফিসের বিশেষ প্রয়োজনে বাইরে গেলে সভায় উপস্থিত থেকে সময় নষ্ট করেন না কর্মকর্তাগণ। এছাড়াও চিঠির সময় অনুযায়ী সভা অনুষ্ঠিত না হওয়া, নির্বাহী কর্মকর্তার অফিস সুপারের কুরুচিপূর্ণ ব্যবহার, তথ্য চাইলে না দেওয়া, উপস্থিতিদের নাস্তা দেওয়ার আগেই অফিস সহকারীদের নাস্তা নিয়ে তোড়জোড়সহ নানা অভিযোগ করেন একাধিক উপস্থিতি। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা মিলায়তনে মাসিক সভা ও সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় জগদেশপুর ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার সিরাজুল ইসলাম কৃষি প্রণোদনা দালালদের মাধ্যমে বিতরণে বিষয়ে অভিযোগ করে বলেন, বিগত ১০ মাসে আমার ইউনিয়নে হত দরিদ্রদের তালিকা কৃষি কর্মকর্তার কাছে দিলেও তালিকা অনুযায়ী কাউকে প্রণোদনা দেওয়া হয়নি। তাদের মনগড়া তালিকা করে দালালদের মাধ্যমে প্রণদনার তালিকা করেছেন। আমার এক এলাকা ১৩’শত জন ভোটার কিন্তু প্রণোদনা দিয়েছেন মাত্র ২ জনকে। তাহলে আমার কাছে থেকে তালিকা নেওয়ার দরকার ছিলো কি? এসময় একাধিক ইউপি চেয়ারম্যান তার সাথে বিষয়টি সম্মতি দেন। সভায় কৃষি কর্মকর্তা সমরেন বিশ্বাস উপস্থিত থাকলেও তেমন সদ্দুত্তর দিতে পারেননি।

এসময় সিংহঝুলী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ মল্লিক বলেন, ভিজিডির চাল খাদ্য গোদাম থেকে নিতে গেলে টাকা ছাড়া দিতে চায় না। বকশিস দিলে তারপর গোদাম থেকে চাল দেওয়া হয়। পরপরই উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের বিষয়ে অভিযোগ করেন সুখপুকুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হবিবর রহমানসহ একাধিক ইউপি চেয়ারম্যান।

তিনি বলেন, উপজেলার সবকয়টি উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলো বন্ধ হয়ে পড়েছে। স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলো বন্ধ থাকায় ভোগান্তীতে পড়তে হচ্ছে জনগণকে, সামান্য কিছুতেই নির্ভরশীল হতে হচ্ছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের। এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইরুফা সুলতানার সভাপতিত্তে¡ সভায় আলোচনা করেন, উপজেলা চেয়ারম্যান ড. এম মোস্তানিছুর রহমান, থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) গুঞ্জন বিশ্বাস, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজনীন নাহার, ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী মাসুদ চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা হবিবর রহমান, অবাইদুল ইসলাম সবুজ, আবুল কাসেম, আতাউর রহমান লাল, আব্দুল হামিদ, মাহমুদুল হাসান, নুরুল কদর, সিরাজুল ইসলাম ও মোমিনুর রহমান, শিক্ষা কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কালাম রফিকুজ্জামান, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা উম্মে সালমা, সমাজসেবা কর্মকর্তা মেহেদী হাসান, কৃষি কর্মকর্তা সমরেন বিশ্বাস, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও আল ইমরান, প্রকৌশলী রিয়াসাত ইমতিয়াজসহ একাধিক ব্যাক্তিবর্গ।

একটি সূত্র জানায়, মাসিক সভা শেষে তামাক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইন বাস্তবায়ন কমিটির সভার আয়োজন করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। ত্রিমাসিক এই সভা অক্টোবর মাসে হওয়ার কথা থাকলেও কমিটির ব্যর্থতার কারণে একমাস পারে অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু সভায় উপস্থিত সকলকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্যানেটারী ইন্সপেকটর স্মাক্ষরে তারিখ উল্লেখ করতে মানা করলে উপস্থিতি মধ্যে নানা প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইরুফা সুলতানা বলেন, সরকার থেকে যেভাবে পরিচালনা করতে বলা হয় সেভাবেই সরকারী প্রণোদনা বন্টন করা হয়।

আমি ইউপি চেয়ারম্যান ও কৃষি কর্মকর্তাকে নিয়ে আলোচনায় বসবো। অভিযোগ পেয়েছি বিষয়টি খতিয়ে দেখবো। অভিযোগের বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান ড. এম মোস্তানিছুর রহমান বলেন, অভিযোগের বিষয়ে কিছু জানার থাকলে অফিসে আসেন। আমি এই বিষয়ে মোবাইলে কিছু বলতে চায়না।
আরও সংবাদ>>চৌগাছায় কোনক্রমেই থামানো যাচ্ছে না গাছ খেকোদের

আরও সংবাদ>>প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে ঝিকরগাছায় স্বেচ্ছাসেবকলীগের লিফলেট বিতরন

আরও সংবাদ>>যশোর সদরে গোপনে মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটি গঠন