জেড মুন্সীর পক্ষে মানুষের ঢল দেখে কুচক্রী মহলের উৎপাত

টাইম ভিশন 24: চলছে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ ২০২১ নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা। তারই ধারাবাহিকতায় বাগেরহাট জেলার, রামপাল উপজেলার ,২নং উজলকুড় ইউনিয়নের সবকয়টি ওয়ার্ডেই চলছে, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পদপ্রার্থীদের প্রচার প্রচারণা লিফলেট, ব্যানার পোস্টার বিতরন। এলাকার জনসাধারণের মুখে দেখা যাচ্ছে নির্বাচনের আনন্দের ছোঁয়া।

 

সরজমিনে দেখা যায়, উজলকুড় ইউনিয়নের(২)নং ওয়ার্ডের, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সমাজ সেবক ,জনদরদি গরিবের বন্ধু অন্যায়ের বিরুদ্ধে বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর, ন্যায় নীতি প্রণয়ন, আদর্শের সৈনিক চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মুন্সি বোরহান উদ্দিন জেড এর পক্ষে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে উক্ত ইউনিয়নের তার ভালোবাসায় মুগ্ধ জনসাধারণেরা।

 

সরজমিনে এলাকার মানুষের কাছ থেকে জানা যায়,মুন্সি বোরহান উদ্দিন জেড এর মাধ্যমে বিগত দিনে আমরা যে পরিমাণ উপকার পেয়েছি ততটুকু উপকার একজন জনপ্রতিনিধিও করে না বা করা সম্ভব হয় না। এবং আমরা তার মাধ্যমে আমাদের ন্যায্য অধিকার পেয়েছি। তাই আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমাদের মুন্সি বোরহান উদ্দিন জেড কে নৌকা নৌকা প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হবে বলে আমরা আশাবাদী। তার মাধ্যমে ইউনিয়ন বাসী একটা ইউনিয়ন পাবে বলে ইউনিয়ন বাসীর দৃড় বিশ্বাস।

 

ওয়ার্ডবাসীর বলেন,বর্তমান সরকারের আমলে যে সকল উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে, সে অনুযায়ী আমাদের ওয়ার্ড গুলোর মধ্যে কোন প্রকার উন্নয়ন হয়ে পারেনি, এমনকি আমাদের অসহায় গরীব পরিবারেরা আমাদের ন্যায্য অধিকার হতে অনেকে বঞ্চিত আছি, তাই আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মুন্সি বোরহান উদ্দিন জেড কে আৃরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে পেলে আমরা তার মাধ্যমে সকল প্রকার উন্নয়নমূলক কাজ সহ আমাদের ন্যায্য অধিকার তার মাধ্যমে ফিরে পাবো বলে আশাবাদী।

জেড মুন্সী একটি জনসভায় বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে যে সকল উন্নয়ন মুলক কাজ হচ্ছে সারাদেশে, সে অনুযায়ী সে অনুযায়ী এই ইউনিয়নে উন্নয়নসাধন হয়ে ওঠেনি।

আগামী ২০ সেপ্টেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা হিসেবে বিজয়ী হইতে পারলে, অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করে মডেল ইউনিয়ন গড়তে পারবো বলে আমি মনে করি। এছাড়াও বিগত দিন যাবত ওয়ার্ড গুলোর মধ্যে আর্সেনিক মুক্ত টিউবওয়েল নেই,ঐ সকল এলাকায় আর্সেনিক মুক্ত টিউবওয়েল স্থাপন করে, জনসাধারণের খাবার পানির ব্যবস্থা করে দিতে পারব বলে আশা করি,যে সকল এলাকা গুলো অন্ধকার যুক্ত রয়েছে, ঐ সকল এলাকাগুলোর মধ্যে স্ট্রিক লাইট, সৌরবিদ্যুৎ লাইট, স্থাপন করে জনসাধারণের চলাচল ব্যবস্থার উন্নতি করতে পারবো বলে আমি মনে করি।

এদিকে জেড মুন্সীর জনপ্রিয়তা কে হিংসাত্মক চোখে দেখছে একটি কুচক্রী মহল। জন সাধারণকে ভুল ভ্রান্তি নানা রকম সমালোচনার মাধ্যমে বিভ্রান্ত করছে। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায়ও চলছে অপপ্রচার।

এবিষয়ে নৌকা প্রতীকের কর্মীরা বলেন, কুচক্রী মহল যতই কু বুদ্ধি সমালোচনা বা অপপ্রচার করুক না কেন জেড মুন্সীর সততা ও নিষ্ঠা দ্বারা তার জয় হবেই। তিনি কথায় নয় কাজে প্রমান দেয় তাই ইউনিয়ন বাসী তাকে মনে প্রানে ভালোবাসে।

সর্বোপরি একটি দূর্নিতী মুক্ত ও মাদক সন্ত্রাস মুক্ত মডেল ইউনিয়ন গড়ার জন্য  বিশেষ ভুমিকা থাকবে।