যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম  খানের বিভাগীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার লাভ

জি এম অভি , যশোর অফিস:  যশোরের জেলা প্রশাসক মোঃ তমিজুল ইসলাম খান খুলনা বিভাগের শ্রেষ্ঠ জেলা প্রশাসক হিসেবে সরকারের বিভাগীয় শুদ্ধাচার পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। গত  শনিবার খুলনা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে  জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কেএম আলী আজম ও বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেন এনডিসি যৌথ ভাবে যশোরের জেলা প্রশাসকের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন।
যশোরের জেলাপ্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান
 খুলনা বিভাগীয় কমিশনারের অফিসের কনফারেন্স রুমে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই পুরস্কার যশোরের জেলা প্রশাসকের  হাতে তুলে দেওয়া হয়। এসময় অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনারবৃন্দ, খুলনা বিভাগের  জেলা প্রশাসকবৃন্দ, যশোরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট কাজী সায়েমুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন ।
সরকার প্রতি বছর জেলা প্রশাসকদের বাৎসরিক কাজকর্ম বিচার বিবেচনা করে এই শুদ্ধাচার পুরস্কার প্রদান করেন। এবছর  খুলনা বিভাগের মধ্যে শ্রেষ্ঠ জনবান্ধব ও জন প্রশাসনমুখি কর্মকান্ডের জন্য যশোরের জেলা প্রশাসক মোঃ তমিজুল ইসলাম খান এই পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন। সরকারী সেবা জনগণের দোর গোড়ায় পৌঁছে দেবার পাশাপাশি সরকারের সকল নির্দেশনা মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়নের মাধ্যমে  জেলা প্রশাসনকে জনবান্ধব হিসেবে গড়ে তোলার মাধ্যমে নিজেকে শুদ্ধাচার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান । যার কারনে যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান  এবছর ২০২০-২১ অর্থ বছরে  বিভাগের শ্রেষ্ঠ জেলা প্রশাসক মনোনীত হন। ইতিমধ্যে যশোরের সাংবাদিক মহলসহ সর্বমহলে জননন্দিত হিসেবে তমিজুল ইসলাম খান নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। বিশেষ করে করোনা মহামারি মোকাবিলায় সরকারের সকল নির্দেশনা অক্ষরে অক্ষরে পালন করার মাধ্যমে  যশোর জেলাকে করোনা পরিস্থিতির ভয়াবহ অবস্থা থেকে রক্ষা করতে তিনি সক্ষমতার পরিচয় দেন। এছাড়া গত এক বছরে সরকারের মাঠ প্রশাসনের বিভিন্ন বিরোধপূর্ণ ইস্যু অত্যন্ত দক্ষতার সাথে মোকাবিলা করে জেলা প্রশাসক তমজিুল ইসলাম খান যথেষ্ঠ সুনাম কুড়িয়েছেন। বিশেষ করে গত এক বছরে জনগণের সাথে  সরাসরি সাক্ষাতের ব্যবস্থা করে তাদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে তিনি দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। বিভিন্ন ধরনের মামলা নিষ্পত্তিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে  জেলা প্রশাসক তমজিুল ইসলাম খানের কর্মকান্ড সরকারের ভাবমূর্তিকে উজ্জল করেছে। এছাড়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণ ও বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসক দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। এর পাশাপাশি যশোরের সকল রাজনৈতিক দলের সহঅবস্থান ঠিক রাখার মাধ্যমে জেলার আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতিকে কঠোর ভাবে নিয়ন্ত্রনের মাধ্যমে জনবান্ধবে পরিণত করেছেন। তাঁর দিক নির্দেশনায় জেলায় ভেজাল বিরোধী অভিযান, ভেজাল ও নকল সারের বিস্তার রোধ, ভেজাল খাদ্য মজুদ ও বাজারজাত করণের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান, জেলার আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ প্রশাসনকে সঠিক ভাবে পরিচালনায় সহায়তা প্রদান, ভেজাল ও নকল ওষুধ মজুদ ও বাজারজাতকরণ প্রতিরোধসহ নানামুখি জনবান্ধব কর্মকান্ডের মাধ্যমে জেলা প্রশাসনকে জনগণের আস্থার প্রতিকে পরিণত করায় যশোরের জেলা প্রশাসক তমজিুল ইসলাম খান বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। যার কারনে এবছর খুলনা বিভাগের মধ্যে সেরা জেলা প্রশাসক নির্বাচিত হয়েছেন। যার স্বীকৃতি স্বরূপ গত শনিবার খুলনা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে বিভাগের সকল জেলা প্রশাসকগণের উপস্থিতিতে  জনপ্রশাসমন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কে এম আলী আজম ও বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেন এনডিসি যৌথ ভাবে যশোরের জেলা প্রশাসকের হাতে সেরা জেলা প্রশাসকের পুরস্কার হিসেবে ক্রেস্ট তুলে দেন । দেশের প্রথম ডিজিটাল জেলা যশোরের জন্য এই পুরস্কার সত্যিই গর্বের। এছাড়া বৃটিশ ভারতের প্রথম জেলা এবং ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে প্রথম শত্রুমুক্ত জেলা যশোরের জন্য জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খানের এই অর্জন আরেকটি মাইল ফলক। এদিকে যশোরের জেলা প্রশাসক তমজিুল ইসলাম খান বিভাগের শ্রেষ্ঠ জেলা প্রশাসক হিসেবে ২০২০-২১ সালের শুদ্ধাচার পুরস্কারে ভূষিত হওয়ায় তাঁকে অভিনন্দন জানান জেলা প্রশাসকের দপ্তরের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ। এছাড়া যশোর রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক ও প্রেসকাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, পৌর সভার মেয়রবৃন্দ, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দসহ যশোরের বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।