যশোরের বসুন্দিয়ায় মাদকব্যাবসায়ী ভাইয়ের হাতে জখম বড়ভাই

বসুন্দিয়া(যশোর) প্রতিনিধি:  যশোরের বসুন্দিয়ায় মোবারক হোসেন নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মাদক কারবারির অভিযোগ উঠেছে। সে সদর উপজেলার জঙ্গলবাধাল গ্রামের মৃত আকবর মোল্লার ছেলে। মাদক ব্যাবসায়ী মোবারক হোসেনের শ্যালক লিটন ১৫পিচ ইয়াবা সহ গত ২৪ আগস্ট ২১ তারিখ তার একজন সহযোগী অনিক বসুন্দিয়া পুলিশের হাতে আটক হয়।
তার জের হিসেবে লিটনের মুক্তির জন্য তার ভাতিজা নওশের নিকট মোবারেকের পাওনা ২০০০/পাওনা চাইতে গেলে বাগবিতণ্ডার মধ্য দিয়ে একপর্যায়ে মোবারেকের স্ত্রী, শ্যালক বড় ভাই আলি আহমেদ দা দিয়ে আঘাত করে পরে উভয় পক্ষের মোবারক সহ ২জন আহত হয়।
তার কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করায় , ক্ষিপ্ত হয়ে দুই জনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে। প্রাপ্ত অভিযোগে জানা যায়, অভিযুক্ত মোবারক হোসেনের তিন স্ত্রী( ১)মান্দারী বেগম, যিনি অভয়নগরের নওয়াপাড়ার রেলস্টেশন বস্তিতে বসবাস করে। (২) মিনি খাতুন (৩) রাশিদা বেগম। অভিযোগ রয়েছে, এক পক্ষের – শাশুড়ি মোমেনা বেগমকে দিয়ে মাদক কারবারি করে থাকে মোবারক হোসেন। মোবারকের এহেন কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করায় তার ভাই আলি আহমেদ( ৫৫) কে গত ২৫/০২/২১ তারিখে শাবল দিয়ে আঘাত করে গুরুতর আহত করে। এ ঘটনায় এলাকায় আলোচনা-সমালোচনা চলছে, যার সূত্র ধরে গত ২৭ মার্চে ঐ গ্রামের আঃ আজিজের চায়ের দোকানে আহত আলী আহমেদের ছেলে নওশের আলীর কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে মোবারক হোসেন নওশের আলীকে মারপিট করে। উল্লেখ্য ইতিপূর্বে মাদক কারবারি অভিযোগে মোবারক হোসেন কে পুলিশ দুই বার আটক করে। এলাকাবাসীর অভিযোগ বর্তমানে সে বিভিন্ন কৌশলে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে । মাদক ব্যাবসায়ী মোবারক হোসেনের শ্যালক লিটন ১৫পিচ ইয়াবা সহ গত ২৪আগস্ট বসুন্দিয়া পুলিশের হাতে আটক হয়। মোবারক হোসেনের ২স্ত্রী, পুত্র,শ্যালক দিয়ে মাদক কারবার চালিয়ে যাচ্ছে ফলে সহজে হাতের কাছে মাদক পেয়ে নেশায় জড়িয়ে পড়েছে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার উটতি বয়সী যুবক ও তরুণ প্রজন্ম। এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকার জনগন।