ধূলামাটি আর কাঁদারত শার্শা উপজেলাকে দৃশ্যমান মডেল শহর করেছেন শেখ আফিল উদ্দিন: বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু

সাংসদ শেখ আফিল উদ্দিন প্রচন্ড ধূলামাটি আর কাঁদারত শার্শা উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলকে করেছেন দৃশ্যমান মডেল শহর
……..বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু

শাহাবুদ্দিন আহমেদ,বেনাপোল:১৫-ই আগস্ট শতাব্দীর শ্রেষ্ট নায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সকল শহীদদের ৪৬ তম শাহাদৎ বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে বেনাপোলে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে বেনাপোল পৌর সেচ্ছাসেবকলীগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু।

বেনাপোলের ছোট আঁচড়া মোড় আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয় প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা স্বাধীন সার্বভৌম জাতীয় পতাকা পেতাম না। তিনি ৭-ই মার্চের ঐতিকহাসিক ভাষনের মাধ্যমে বাঙালি জাতিকে এক হয়ে মুক্তির সংগ্রামে ঝাপিয়ে পড়ার নির্দেশনা দিয়েছিলেন। তাইতো ১৯৭১ সালে আমরা স্বাধীনতা লাভ করি। যা সহ্য করতে পারেনি আমাদের মাঝে লুকিয়ে থাকা পাকিস্তানি পেতাত্মারা। তাই, তারা বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যার মিশন নিয়ে ১৯৭৫ সালের ১৫-ই আগষ্ট হত্যা করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তাঁর পরিবারের অধিকাংশ সদস্যদের। কেবল বিদেশে থাকার কারণে মহান দয়ালু আল্লার অশেষ কৃপায় বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর কণ্যা শেখ রেহেনা ও আজকের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার নিখুত কারিগর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় তিনি আরো বলেন, ১৯৭৫’র পরে ভঙ্গুর আওয়ামীলীগকে দীর্ঘ বছর পরে হলেও বিদেশ থেকে ফিরে জাতির জনকের রতœ শেখ হাসিনা তীলে তীলে সুসংগঠিত করেছেন। তলা বিহীন ঝুড়ির ন্যায় দেশকে করেছেন আধুনিক থেকে অত্যাধুনিক তথা ডিজিটাল বাংলাদেশ। যা আজ বিশে^র কাছে দৃশ্যমান ও উন্নয়নশীল রাষ্ট্রের দাবিদার।

এসময় তিনি শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের নৌকার মাঝি শেখ আফিল উদ্দিনের উক্তি টেনে বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্নিকণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ¯েœহ ভালোবাসা ও পরামর্শে শার্শা উপজেলার একসময়ের ভঙ্গুর আওয়ামীলীগকে তৃর্ণমূল আওয়ামীলীগসহ সকল সহযোগী সংগঠনকে সুসংগঠিত করেছেন। আজ সারা বাংলাদেশের সাথে তাল মিলিয়ে শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগ সুসজ্জিত। শেখ আফিল উদ্দিন তার সততা, মেধা, অর্থ ও তার মতো একজন শিল্পপতির কাছে সবচেয়ে মহামূল্যবান সময়কে সার্বক্ষণিক ব্যয় করেছেন উপজেলার মাঠে ময়দানে। সাংসদ শেখ আফিল উদ্দিন আওয়ামীলীগ দেশ পরিচালনার একযুগে প্রচন্ড ধূলামাটি আর কাঁদারত শার্শা উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলকে করেছেন দৃশ্যমান মডেল শহর।

বেনাপোল পৌর সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুলফিকার আলী মন্টুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরে আলম সিদ্দীকি মিলন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সেচ্ছাসেবকলীগের সদস্য তৌহিদুর রহমান ও যশোর জেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সহ সভাপতি প্রভাষক মিকাইল হোসেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও যশোর জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবলু, বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব এনামুল হক মুকুল, সহ সভাপতি আলীকদর সাগর, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক মহাতাব উদ্দিন, শার্শা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য অহিদুজ্জামান অহিদ, সাধারণ সম্পাদক ও শার্শা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন, বেনাপোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বজলুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার, সাধারণ সম্পাদক ইকবল হোসেন রাসেল প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বেনাপোল পৌর সেচ্ছাসেবকলীগের সহ সভাপতি শরীফুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক ফরহাদ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক রিমন হোসেন, দপ্তর সম্পাদক রাব্বি, অর্থ সম্পাদক সুমন, নাহিদ হাসান, প্রচার সম্পাদক শাহজালাল সোহেল, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি আল মামুন জোয়াদ্দার, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুর রহমানসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের সকল সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।