ট্রাফিক সার্জেন্টকে ফেসবুক লাইভে হুমকি দেয়া সাংবাদিক র‍্যাবের হাতে আটক।

টাইম ভিশন ডেস্কঃমোটরসাইকেল আটক করে কাগজপত্র দেখতে চাওয়ায় ট্রাফিক সার্জেন্টকে হুমকি দিয়ে ফেসবুকে লাইভ করায় সাংবাদিক পরিচয়ধারী ফয়ছল কাদিরকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৯)।
মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) মধ্যরাতে সিলেট সদর উপজেলার পীরের বাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। র‍্যাব-৯-এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সামিউল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে গত ১১ জুলাই রাতে সিলেট নগরের শাহপরাণ থানায় তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করে ট্রাফিক সার্জেন্ট । মামলায় ফয়ছল কাদিরের বিরুদ্ধে ফেসবুকে বিভিন্ন মিথ্যা তথ্য সরাসরি প্রচার করে অস্থিরতা, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর অভিযোগ আনা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, লকডাউন চলাকালে গত ৯ জুলাই বিকেলে সিলেট-তামাবিল সড়কের সুরমা গেট এলাকায় তিন আরোহী নিয়ে চলা একটি মোটরসাইকেল আটক করে দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেট। সাংবাদিক পরিচয়ধারী ফয়ছল কাদির এই মোটরসাইকেলটি চালাচ্ছিলেন। এ সময় তার মাথায় হেলমেট ছিল না। আটকের পর তিনি মোটরসাইকেলের কাগজপত্র এবং নিজের ড্রাইভিং লাইসেন্সও দেখাতে পারিনি।
এ সময় তিনি নিজেকে দৈনিক মাতৃজগতের সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে সার্জেন্ট মো. নুরুল আফসার ভূইয়ার সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন এবং মোটরসাইকেল ছাড়িয়ে নিতে চান। এমন পরিস্থিতির মধ্যেই অতিরিক্ত যাত্রী বহন, হেলমেটবিহীন আরোহণ করা, রেজিস্ট্রেশনবিহীন গাড়ি চালানোর অপরাধে সড়ক পরিবহন আইনে মামলা করেন সার্জেন্ট নুরুল আফসার। এরপর মোটরসাইকেলটি পুলিশ লাইন্সে পাঠান।
এ বিষয়কে কেন্দ্র করে ফয়ছল কাদির ফেসবুকে বিভিন্ন মিথ্যা তথ্য লাইভ প্রচার করে অস্থিরতা, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর চেষ্টা করেন। এ ঘটনা নিয়ে আলোচনার মধ্যেই গত ১১ জুলাই রাতে ফয়সালের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন সার্জেন্ট নুরুল।