ঐক্যবদ্ধের কারণে ভোট কেন্দ্রে সাংবাদিক নির্যাতন হ্রাস পাচ্ছে: বিএমএসএফ।

টাইম ভিশন ডেস্ক: সাংবাদিকরা আগের তুলনায় পেশাগত ঐক্যবদ্ধের কারণে নির্যাতন হ্রাস পাচ্ছে বলে ধারণা করছে বিএমএসএফ। সোমবারে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিচ্ছিন্ন ঘটনায় ক’জন সাংবাদিক নির্যাতনের ওি হয়রাণীর শিকার হয়েছেন। তবে ভোলার বোরহানউদ্দিনে সোহেল নামে এক সাংবাদিকের নিখোঁজের ঘটনাটি আমাদেরকে ভাবিয়ে তুলেছে। অবিলম্বে তাকে উদ্ধার করে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করার দাবি করা হয়েছে।

সোমবার বিকেলে নির্বাাচন পরবর্তী কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংক্ষিপ্ত বৈঠকে এই অবস্থান ধরে রাখতে দেশের সকল পর্যায়ের সাংবাদিকদের প্রতি আহবান জানিয়েছে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম- বিএমএসএফ নেতৃবৃন্দ।
নেতৃবৃন্দ বলেন, সারাদেশের ৩ শতাধিক ইউপি ও পৌর নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। সেখানে কোনরুপ সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটেনি। এ থেকে ধারণা করা হচ্ছে দেশের মানুষ সচেতন হচ্ছেন, সাংবাদিকদের প্রতি আন্তরিক হচ্ছেন। কেননা; সাংবাদিকরাই সাধারণ মানুষের একমাত্র বিপদের বন্ধু।

উল্লেখ্য, দেশে চলমান নির্বাচন ইস্যুতে বিএমএসএফ ও সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির যৌথ উদ্যোগে ৫ সদস্য বিশিষ্ট সাংবাদিক নির্যাতন বিরোধী সেল গঠন করা হয়। সেল নেতৃবৃন্দ সারাদেশের বিএমএসএফ শাখাসমুহের সাথে যোগাযোগ, বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকার খবর ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে প্রাপ্ত তথ্য সংগ্রহ করা হয়। এতে উল্লেখযোগ্য কোন সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা পাওয়া যায়নি। তবে ভোটের আগের দিন দেশের বিভিন্ন স্থানে পর্যবেক্ষন কার্ড প্রদানে প্রশাসনের পক্ষপাতমূলক আচরণ ও হয়রাণীর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

দেশের কিছু স্থানে সাংবাদিকদের ভোট কেন্দ্রে প্রবেশে বাঁধাদানের খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় সাংবাদিক নির্যাতনের খবর জানাতে সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ সেলের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন।
বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী আহমেদ আবু জাফর দেশে নির্বাচনগুলোতে সাংবাদিক নির্যাতন কমিয়ে আনতে সকল পেশার মানুষ এবং সাংবাদিকদের প্রতি উদাত্ত আহবান জানিয়েছেন।