ইভটিজিং থেকে বাঁচতে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা, সাত বখাটে গ্রেপ্তার

টাইম ভিশন ডেস্ক ঃজয়পুরহাট ক্ষেতলালে সনাতন ধর্মের নবম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রী (১৪) ইভটিজিংয়ের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে কিটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছে।ওই স্কুলছাত্রীকে গেল রাত দুটার দিকে তাকে ক্ষেতলাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনার পর ক্ষেতলাল উপজেলার আটি গ্রাম থেকে সাত বখাটে কে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নীরেন্দ্রনাথ মন্ডল।

আটকরা হলো- ক্ষেতলাল উপজেলার ধনকুড়াইল গ্রামের হেলাল হোসেনের ছেলে সিহাব(১৯) একই গ্রামের হাসমত আলীর ছেলে জহুরুল ইসলাম(১৯), ইসলামপুর গ্রামের ইব্রাহিম হোসেনেরে ছেলে মোমিন (১৮) রামপুরা গ্রামের আক্কাস আলীর আশরাফুল ইসলাম(১৯) খলিলুর রহমানের ছেলে লিটন হোসেন(১৯) সুর্য্যবান গ্রামের আজিমুদ্দিন ইমন হোসেন,(১৮) আটিগ্রামের শামছুল হকের ছেলে সাজ্জাদুল(১৯) ।

ওসি নীরেন্দ্রনাথ মন্ডল বলেন, প্রাইভেট পাড়তে যাওয়ার পথে ওই স্কুলছাত্রীকে প্রতিনিয়ত উত্যক্ত করতো সিহাব নামে এক বখাটে। স্কুল ছাত্রীর অভিভাবক বার বার ওই বখাটে কে সতর্ক করে দেওয়ার পরও গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ওই স্কুলছাত্রী বাড়ীর সামনে তার মাকে ধান শুকানোর কাজে সহযোগিতা করছিলেন। এমন সময় বখাটে সিহাবসহ সাত জন ওই স্কুল ছাত্রীকে যৌনহয়রানী সহ তাকে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে ছাত্রীটির চিৎকারে এলাকাবাসীরা ছুটে আসলে ওই বখাটেরা পালিয়ে যাওয়ার সময় এলাকাবাসীরা তাদের আটক করে পুলিশকে খবর দেয়।

পরে পুলিশ এসে তাদের গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় স্কুল ছাত্রীর বাবা ক্ষেতলাল থানায় মামলা করেছেন। আজ বুধবার দুপুরে তাদের জয়পুরহাট আদালতে পাঠানো হয়েছে।