বাঘারপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান কাজল’র শেষ বিদায়ে মানুষের ঢল

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর : সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম কাজলকে শ্রদ্ধা, ভালবাসায় অশ্রæসিক্ত শেষ বিদায় জানিয়েছে উপজেলাবাসী। মঙ্গলবার দুই দফা নামাজে জানাজা শেষে গ্রামের বাড়ি বাঘারপাড়া উপজেলার আমুড়িয়ায় পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করেছেন স্বজন, বন্ধু ও দলীয় নেতাকর্মীরা। তার শেষ বিদায় জানাতে বাঘারপাড়া উপজেলা চত্বর ও গ্রামের বাড়িতে ছিল হাজারো মানুষের ঢল। কান্নায় ভেঙে পড়ে স্বজনরা। তাকে শেষ
বিদায় জানান।

আরো সংবাদ

www.timevision24.com/2020/09/08/3647

এর আগে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা নাজমুল ইসলাম কাজলের অকাল মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। ব্যবসায়িক কাজে তিনি হবিগঞ্জে
গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফেরার পথে সোমবার বিকেলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন। সন্ধ্যায় তার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর সামাজিক যোগাযোগ ও গণমাধ্যমে শোক প্রকাশ করেন আওয়ামী
লীগ, সংসদসহ দলীয় নেতার্মীরা। সোমবার বিকেল হবিগঞ্জের মাধবপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন নাজমুল ইসলাম কাজলসহ চারজন। মঙ্গলবার দুপুরে তার মরদেহ বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদ চত্ত¡রে এসে পৌঁছায়। এসময় কান্নায় ভেঙে পড়েন তার স্বজন ও রাজনৈতিক অনুসারিরা। শোকের ছায়া নেমে আসে
গোটা এলাকায়। বিকাল তিনটার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে প্রথম নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে তার মরদেহে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান যশোর-৪ আসনের এমপি রণজিত কুমার রায়, বাঘারপাড়া
উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানিয়া আফরোজ। এরপর যশোর জেলা আওয়ামী লীগ, বাঘারপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, ওয়ার্কার্স পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। প্রথম জানাজা শেষে তার মরদেহ নেওয়া হয় ভাংগুড়া কলেজ মাঠে। সেখানে দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে আমুড়িয়া গ্রামের পারিবারিক
কবরস্থানে তার মরদেহ দাফন করা হয়। এদিকে, তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের
প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও যশোর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শাহীন চাকলাদার। বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম কাজল’র
শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে যান যশোর-৪ আসনের
সংসদ সদস্য রণজিৎ কুমার রায়, স্থানীয় সরকার বিভাগ যশোরের উপ-

পরিচালক হুসাইন শওকত, বাঘারপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানিয়া আফরোজ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা জান্নাত, মনিরামপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমা খানম, যশোর জেলা
আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গাজী গোলাম মোস্তফা, হায়দার গনি খান পলাশ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বেনাপোল পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম আফজাল
হোসেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহিত কুমার নাথ, সাধারণ সম্পাদক শাহারুল ইসলাম, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. আসাদুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক এসএম মাহমুদ হাসান
বিপু, কাশিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান সাগর, জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি মোস্তফা ফরিদ আহম্মেদ চৌধুরী, বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা মশিয়ুর রহমান, সাবেক মেয়র আব্দুল হাই মনা, বাঘারপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা হাসান আলী,
পৌরসভার মেয়র কামরুজ্জামান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিথিকা বিশ্বাস, ইউপি চেয়ারম্যান আবু মোতালেব তরফদার, আবু তাহের আবুল সরদার, মঞ্জুর
রশিদ স্বপন, সবদুল হোসেন খান, দ্বীন মোহাম্মদ দিলু পাটোয়ারি, সুভাষ দেবনাথ, আবু সাঈদ সরদার, আয়ুব হোসেন বাবলু প্রমুখ। বাঘারপাড়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবদুর রউফ বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য নাজমুল ইসলাম কাজলের পাথর ও ঠিকাদারী ব্যবসা ছিল। তিনি ব্যবসায়িক কাজে হবিগঞ্জে
গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন। তিনি আরও বলেন, নাজমুল ইসলাম কাজল জামদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন ২০০৩-২০১১ সাল পর্যন্ত। সে সময় তিনি
স্বর্ণপদকও অর্জন করেছিলেন। আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে জনপ্রিয়
নেতা হিসেবে পরিচিত ছিলেন। ২০১৯ সালের উপজেলা পরিষদ
নির্বাচ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত হন। ওই বছর ৩১ মার্চ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিপুল ভোটে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার ভাই কামরুল ইসলাম টুটুল জামদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান। নাজমুল ইসলাম কাজলের শ^শুর খুলনা-৪ আসনের আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য মোল্লা জালাল উদ্দীন। নাজমুল ইসলাম কাজলের দুই ছেলে মেয়ে রয়েছে।