মোংলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী হামলায় স্ত্রী-পুত্রসহ আহত-৫

মোংলা প্রতিনিধি : মোংলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে একটি বসত ঘরে ডুকে মারধর, ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়েছে এলাকার চিহৃত একদল সন্ত্রাসীরা। এঘটনায় ৫জন আহত সহয়েছে, তবে হামলার শিকার জাহিদুল খান’র অবস্থা গুরুতর। উপজেলার চাদঁপাই ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড নারকেলতলা আবাসন এলাকায় এঘটনা ঘটে। এব্যাপারে থানায় এজাহার দাখিল হলে এখনও কোন আসামী গ্রেফতার করতে পারেনী পুলিশ। এনিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
পুলিশ ও প্রত্যাক্ষদশর্ী এলাকাবসী জানায়, সম্প্রতি দেশব্যাপী করোনা ভাইরাসে প্রাদুর্ভাবে মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছে খুবই কম। এ সুবাধে নারকেলতলা আবাসন এলাকায় বসবাসকারী বাদল, হানিফ ও সাকিলসহ বেশ কয়েকজন মিলে সংঙ্গবদ্ধ হয়ে একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ গড়ে তোলে। এ সস্ত্রাসী দলটি এলাকার নীরিহ মানুষদের হামলা, লুটপাট, মারধর ও নির্যাতনসহ হয়রানী করে আসছিল। এ ব্যপারে কেউ প্রতিবাদ করলে তার উপর নেমে আসে অমানুষিক নির্যাতন ও মিথ্যা মামলা করে হয়রানী করারও বহু অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। তেমনী আবাসন এলাকার ২৪ ব্র্যাকের বসবাসকারী জাহিদুল খানঁ গত ১৬ জুন রাত সাড়ে ১২টার দিকে পারিবারিক বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রী ঝগড়া হয়। এক পর্যায় স্বামী-স্ত্রীর বাক-বিতান্ডাকে কেন্দ্র করে জাহিদুলের বসত ঘরে প্রবেশ করে বাদল, হানিফ, সাকিলসহ ১০/১২জনের একদল সন্ত্রাসী। কিছু বুঝে ওঠার আগেই জাহিদুলকে মারধর শুরু করে তারা। এ সময় বাবা ইদ্রিস খানঁ, মা জমেলা বেগম, প্রতিবেশী আঃ সালাম, আবুল বাসারসহ এলাকাবাসী ঠেকাতে গেলে তাদেরও বেধরক মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে তারা। এসময় জাহিদুলের ঘরে ভাংচুর চালিয়ে স্বর্নালংকারসহ নগত প্রায় লক্ষাধিক টাকা লুট করে নেয় ওই সকল সন্ত্রাসীরা বলে অভিযোগ জাহিদুলের। এতে গুরুতর আহত হয় ইদ্রিস আলী (৫০), জমেলা বেগম (৪৫), হাবিবুর রহমান (৫৫), আঃ সালাম (৫২) আবুল বাসার (৫০) ও ঘরের মলিক জাহদিুল খাঁন (৩৫)। গতকাল এব্যাপারে বাদল, হানিফ, সাকিল, মনি বেগম ও সোনিয়াসহ কয়েকজনকে আসামী করে মোংলা থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে। তবে ঘটনার তিনদিন অতিবাহিত হলেও এখনও কাউকে আটক করতে পারেনী পুলিশ।
নারকেলতলা আবাসন সমবায় সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ হাবিবুর রহমান জানান, এ আবসানে হাজার হাজার লোকের বসবাস। তারা বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আসহায় ও গরিব ও নিরিহ লোকজন এসে এখানে বাস করছে কিন্ত হানিফ এলাকায় একটা সন্ত্রাসী গ্রুপ তৈরী করে মাদক বেচাকেনাসহ চালাচ্ছে অপরাধ মুলক কর্মকান্ড। তাদের অত্যাচোরে মানুষ এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছে। এই গ্রুপটি বিরুদ্ধে বহু মামলাও রয়েছে। প্রতিবাদ করলে তারা আবাসনের নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি ও এলাকার বয়োজ্যেষ্ঠদের অপমান করছে প্রতিনিয়ত। কিন্ত সম্প্রতি গড়ে ওঠা এ গ্রুপটি বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানিয়েছেন তিনি।
তদন্তকারী কর্মকর্তা মোংলা থানার সেকেন্ড অফিসার মোঃ জাহাঙ্গির আলম বলেন, নারকলতলা আবাসনের এলাকায় ভাংচুর ও মারধরের ঘটনার একটি অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত চলছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানায় তিনি।